খাগড়াছড়িতে পিসিপি ও যুব ফোরামের বিক্ষোভ

মানিকছড়িতে হামলাকারীদের গ্রেফতার ও দুই গ্রামবাসীর মুক্তির দাবি

সিএইচটি-অবজারভার.কম: শনিবার ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫ :

K

মানিকছড়িতে হামলাকারীদের গ্রেফতার দুই গ্রামবাসীর মুক্তির দাবিতে খাগড়াছড়িতে পিসিপি ও যুব ফোরামের বিক্ষোভ

আজ শনিবার খাগড়াছড়িতে মানিকছড়ি উপজেলার চোক্কেবিল গ্রামে সাম্প্রদায়িক হামলার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার ও আটক দুই গ্রামবাসী রাপ্রুচাই মারমা ও উষামং মারমার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম খাগড়াছড়ি শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ খাগড়াছড়ি সদর থানা শাখার দপ্তর সম্পাদক জুয়েল চাকমার স্বাক্ষরিত এক প্রেস বার্তায় জানানো হয়, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম সদর থানা শাখার ব্যানারে শনিবার বিক্ষোভ মিছিলটি খাগড়াছড়ি বাজার থেকে শুরু হয়ে স্লুইচগেট এলাকায় গিয়ে শেষ হয়। মিছিলে গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক অংগ্য মারমাসহ সংগঠনদ্বয়ের থানা শাখার নেতা-কর্মী ও ছাত্র-যুবকরা অংশগ্রহণ করেন।

প্রেস বার্তায় দাবী করা হয়, বুধবার রাতে লাপাইডং পাড়ায় আবদুল মতিন নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আটক দেখিয়ে গ্রামবাসী  রাপ্রুচাই মারমা ও ঊষামং মারমাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার মানিকছড়ি সদরের জিয়ানগর গুচ্ছগ্রামের মো: মোজাম্মেলের নেতৃত্বে একদল সেটলার উপজেলার চোক্কেবিল গ্রামে ঢুকে পাহাড়িদের উপর হামলা চালায়। এতে হ্হ্রাসা মারমা (৭০), রাম্প্রুচাই মারমা (৪০), ক্যচাই মারমা(১৮) ও রেদা মারমা(১৫) আহত হন।

মিছিল থেকে অবিলম্বে আবদুল মতিন হত্যার সাজানো নাটক বন্ধ করে পাহাড়ি গ্রামবাসীদের উপর হামলার সাথে জড়িত মানিকছড়ি সদরের জিয়ানগর গুচ্ছগ্রামের মোজাম্মেল গংদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি, আটক দুই নিরীহ গ্রামবাসীর নিঃশর্ত মুক্তি, মানিকছড়ি-রামগড়ের বিভিন্ন এলাকায় সেটলার কর্তৃক ভূমি বেদখল ও আইন-শৃংখলা বাহিনীর নিপীড়ন-হয়রানি বন্ধের দাবি জানানো হয়েছে ।

 

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment