৪র্থ শ্রেণির বৃত্তি প্রাপ্তদের বৃত্তি ও সনদ বিতরণ

শিক্ষা ক্ষেত্রে কোন প্রকার অনিয়ম সহ্য করা হবে না-বৃষ কেতু চাকমা

সিএইচটি-অবজারভার.কম: বুধবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ :

Chairmanরাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা বলেছেন, ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠী যাতে তাদের নিজস্ব মাতৃভাষায় শিক্ষা গ্রহণ করতে পারে সেজন্য ইতিমধ্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম মন্ত্রণালয় তাদের কাজ শুরু করেছে। খুব শীঘ্রই এ বিষয়ে আমরা একটা সুখবর পাবো। তিনি বলেন, শিক্ষা ক্ষেত্রে কোনরকম অনিয়ম সহ্য করা হবে না এবং শিক্ষকদের মাঝে যদি কেউ দুর্নীতির সাথে জড়িত থাকে প্রমাণিত হয় তাহলে সরকারি বিধি মোতাবেক তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
আজ বুধবার রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের আয়োজনে রাঙ্গামাটি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনষ্টিটিউটে অনুষ্ঠিত ৪র্থ শ্রেণীর বৃত্তি পরীক্ষা ২০১৪-এর বৃত্তি প্রাপ্তদের সনদ ও বৃত্তি বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন।
জেলা শিক্ষা অফিসার ত্রিরতন চাকমার সঞ্চালনায় ও রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা রাঙ্গামাটি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আবু জাফর মো: সালেহ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য রেমলিয়ানা পাংখোয়া, রাঙ্গামাটি জেলা সিভিল সার্জন ডা: স্নেহ কান্তি চাকমা, রাঙ্গামাটি প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি সুনীল কান্তি দে, কাউখালী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা পরিণয় চাকমা, বরকল উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আলতাফ হোসেন।
বৃষ কেতু চাকমা আরো বলেন, শিক্ষা ছাড়া উন্নত জাতি গড়ে তোলা সম্ভব নয়, তাই শিক্ষাকে প্রাধান্য দিতে হবে। তবে মেধাবী শিক্ষার্থী যাতে গড়ে উঠে সেজন্য সকলকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে। তিনি বলেন, পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে নকল করা যাতে একেবারে বন্ধ হয়ে যায় সেজন্য কঠোরভাবে উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।
অনুষ্ঠানে রাঙ্গামাটির ১০টি উপজেলার ৬৩৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩২৭ জন শিক্ষার্থীকে ৩ লক্ষ ৮৮ হাজার টাকার বৃত্তি প্রদান করা হয়। এর মধ্যে অনন্য মেধায় ২০জনকে ২হাজার টাকা করে, ট্যালেন্টপুলে ৮২জনকে ১হাজার ৫শত টাকা করে এবং সাধারন বৃত্তি প্রাপ্ত ২২৫জন শিক্ষার্থীর মাঝে ১হাজার টাকা করে বৃত্তি, সনদ ও ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়।
বৃত্তিপ্রাপ্তদের মাঝে রাঙ্গামাটি সদর উপজেলায় ১০৪ জন, কাউখালী উপজেলায় ২৫ জন, নানিয়ারচর উপজেলায় ২৭ জন, বরকল উপজেলায় ১৯ জন, জুরাছড়ি উপজেলায় ১৬ জন, লংগদু উপজেলায় ২৪ জন, বাঘাইছড়ি উপজেলায় ৪৮ জন, কাপ্তাই উপজেলায় ৩৫ জন, রাজস্থলী উপজেলায় ১৬ জন, বিলাইছড়ি উপজেলায় ১৩ জন শিক্ষার্থী বিভিন্ন গ্রেডে বৃত্তিপ্রাপ্ত হয়।
উল্লেখ্য, ২০০৩ সাল থেকে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের উদ্যোগে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের জন্য এ শিক্ষাবৃত্তির চালু করা হয়।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment