তথ্য জানার অধিকার দিবস পালিত

একমাত্র তথ্য দিয়ে দুর্নীতি কমানো সম্ভব-সামসুল আরেফিন

সিএইচটি-অবজারভার.কম: বৃহস্পতিবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৫ :

DCদেশ প্রেমের অভাব ও  মনের মধ্যে খারাপ উদ্দেশ্য থাকলে তারা দুর্নীতি করে থাকে বলে মন্তব্য করেছেন রাঙ্গামাটি  জেলা প্রশাসক  মো: সামসুল আরেফিন ।

তিনি বলেন, একমাত্র তথ্য দিয়ে দুর্নীতি কমানো সম্ভব। ইতোমধ্যে  সরকার তথ্য অধিকার আইন প্রণয়ন করেছে মানুষকে তথ্যে উৎসাহিত ও সচেতনা সৃষ্টি করার জন্য। মানুষ তথ্য অধিকার সম্পর্কে যতই জানতে পারবে ততই দুর্নীতির প্রকট কমানো সম্ভব।

আর্ন্তজাতিক তথ্য জানার অধিকার দিবস উপলক্ষে গতকাল বুধবার রাঙ্গামাটিতে দু’দিনব্যাপী তথ্য  মেলার উদ্বোধন করতে গিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

রাঙ্গামাটি জিমনেসিয়াম হল রুমে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) সহযোগী সংগঠন সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) রাঙ্গামাটি শাখার উদ্যোগে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সনাক রাঙ্গামাটি কমিটির সভাপতি চাঁদ রায়। বিশেষ অতিথি ছিলেন ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মো: শহীদুল্লাহ, জেলা সিভিল সার্জন ডা. স্নেহ কান্তি চাকমা, রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অরুন কান্তি চাকমা। স্বাগত বক্তব্যে রাখেন জাতীয় মানবধিকার কমিশনের সদস্য ও সনাক সদস্য নিরুপা  দেওয়ান। বক্তব্য রাখেন ইয়েস কমিটির দলনেতা প্রণব চাকমা।  অনুষ্ঠান শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

এর আগে জেলা প্রশাসন কার্যালয় চত্বর থেকে জিমনেসিয়াম চত্বর পর্ষন্ত একটি শোভাযাত্রা বের করা হয়।  দু’দিন ব্যাপী মেলায় জেলার  সরকারি-বেসরকারি  প্রতিষ্ঠানের ১৭টি ষ্টল রয়েছে।

সভায় বক্তারা বলেন, তথ্য না জানার কারণে অনেক কিছু থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সাধারণ জনগণ। তথ্য অধিকার সম্পর্কে জানা থাকলে যে কোন প্রতিষ্ঠানে দুর্নীতি কমানো সম্ভব। বক্তারা দুর্নীতিকে ‘না’ বলে  এবং ঘৃণা করে সামাজিকভাবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলন করার জন্য সবাইকে আহ্বান জানান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক  সামসুল আরেফিন আরও বলেন, তথ্য জানার জন্য সরকার তথ্য বাতায়নের ব্যবস্থা করেছে। প্রত্যেক  জেলায় তথ্য বাতায়নের অধীনে ওয়েবসাইট রয়েছে।  ওইসব জেলা ওয়েবসাইটে  কোন প্রতিষ্ঠান কি কাজ করছে এবং কি প্রকল্প  বাস্তবায়ন করছে তার  বিস্তারিত তথ্য  দেয়া রয়েছে।  এসব ব্যাপারে তথ্য জানা যাবে এবং প্রশ্নও করা যাবে।

বাংলাদেশ একদিন দুর্নীতি মুক্ত দেশে পরিণত হবে উল্লেখ তিনি বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার জন্য সরকারের রূপকল্প রয়েছে। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি  উন্নত  দেশে পরিণত করার যে পরিকল্পনা রয়েছে সেদিকে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। ইতোমধ্যে এমজিডি-এর লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নে আমরা বিশাল মাইলফলক অতিক্রম করেছি।

তিনি বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ প্রায় ২৪শ কোটি মার্কিন ডলার। যা বর্তমানে দেশে বিপুল পরিমাণের অর্থ হাতে রয়েছে।  যে কোন প্রজেক্ট নিতে চাইলে সরকার নিতে পারবে, সেই সাহস সঞ্চিত হয়েছে। বাংলাদেশ যে তলাবিহীন ঝুড়ি নয় তা প্রমাণ করেছি। ইতোমধ্যে  বাংলাদেশ  থেকে  ৫০ হাজার মেট্রিক টন চাউল বিদেশে রপ্তানী করা হয়েছে।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment