পর্যটক অপহরণের ঘটনায় আরো ৩জন গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্ট –

Kidnap

বান্দরবানে দু’পর্যটকসহ ৩ জন অপহরণের ঘটনায় আরও ইউপি সদস্যসহ ৩ জনকে আটক করেছে সেনাবাহিনী। আটকৃতরা হলেন, রাঙ্গামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার বড় থলি ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নং ওয়ার্ড সদস্য ইয়ংরুং ম্রো, ছুংছুং পাড়ার বাসিন্দা মেনপ্রু ম্রো এবং রিংরাও ম্রো।

জানা যায়, শনিবার বিলাইছড়ির জারুলছড়ি ছুংছুং পাড়া ক্যাম্পের সেনাবাহিনীর একটি দল তাদের আটক করার পর বান্দরবান সেনাবাহিনীর হাতে হস্তান্তর করে। রাঙ্গামাটি উপজেলার বিলাইছড়ি উপজেলার ৪নং বড় থলি ইউপি চেয়ারম্যান আতু মং মার্মা আটকের ঘটনা সত্য জানিয়ে বলেন, পর্যটক অপহরণের ঘটনায় এক ইউপি সদস্যসহ ৩ জনকে আটক করেছে সেনাবাহিনী।

রুমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: শরিফুল ইসলাম জানান, অপহরণের সাথে জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সেনাবাহিনী ৩ জন ম্রো সম্প্রদায়ের লোকজনকে আটক করেছে। অবশ্য এ বিষয়ে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, গত ৪ অক্টোবর ঢাকা মিরপুরের বাসিন্দা মো: আব্দুল্লাহ আল জোবায়ির ও মো: জাকির হোসেন মুন্না নামে দুই পর্যটক স্থানীয় গাইড মংসাই ম্রো-কে নিয়ে বান্দরবানের রুমা উপজেলার মিয়ানমার সীমান্তবর্তী এলাকা রাঙ্গামাটির বিলাইছড়ি বড়থলি পাড়ার নতুন পুকুর পাড় এলাকায় বেড়াতে গিয়ে অপহরণের শিকার হন। অপহরণ ঘটনার পর থেকে অপহৃতদের উদ্ধারে সেনাবাহিনী ও বিজিবি পুরো এলাকায় চিরুণী অভিযান পরিচালনা করে আসছে।

এ ঘটনার পর সেখানকার সেনাবাহিনী অভিযান চালিয়ে গত ১৪ অক্টোবর অপহরণের মূল পরিকল্পনাকারী হিসাবে চিহ্নিত পাছিং কার্বারীসহ ৫ জনকে আটক করা হয়েছিল। তাদের বর্তমানে বান্দরবান গোয়েন্দা হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এই নিয়ে অপহরণের ঘটনায় মোট ৮ জন আটক হলো।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment