ঢাকায় পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের ২২তম কেন্দ্রীয় সম্মেলনের উদ্বোধন

ডেস্ক রিপোর্ট

ঢাকায় ইউপিডিএফ (ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট) সমর্থিত বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের (পিসিপি) গতকাল রোববার থেকে দু’দিন ব্যাপী ২২তম কেন্দ্রীয় সম্মেলন শুরু হয়েছে।

পিসিপির কেন্দ্রীয় কমিটির দপ্তর সম্পাদক বিপুল চাকমা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বার্তায় বলা হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহাসিক বটতলায় দলীয় ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও বেলুন উড়িয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মেলন উদ্বোধন করেন ইউপিডিএফ -এর কেন্দ্রীয় সদস্য নতুন কুমার চাকমা।

পিসিপির কেন্দ্রীয় সভাপতি থুইক্যাচিং মারমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অতিথি ছিলেন, জাতীয় মুক্তি কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল হাকিম, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি এম এম পারভেজ লেলিন, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জিলানী শুভ, বিপ্লবী ছাত্র যুব আন্দোলনের সহ-আহ্বায়ক অনিক, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি নিরূপা চাকমা ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক অংগ্য মারমা প্রমুখ।

উদ্বোধনী ভাষণে নতুন কুমার চাকমা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারা দেশে যেভাবে নিপীড়ণ-নির্যাতন চলছে তাতে শাসকগোষ্ঠীর ফ্যাসিস্ট চরিত্র দিন দিন আরো স্পষ্ট হয়ে উঠছে। ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমেই ফ্যাসীবাদী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে ছাত্র সমাজ ও দেশের গণতান্ত্রিক শক্তিকে সোচ্চার হতে হবে।

এর আগে ঐতিহাসিক বটতলা থেকে র‌্যালি সহকারে রাজু ভাস্কর্য হয়ে শহীদ মিনারে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে দুই দিনব্যাপী কেন্দ্রীয় সম্মেলনের প্রথম দিন অতিবাহিত হয়। দু’দিন ব্যাপী সম্মেলন শেষে আজ সোমবার নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হবে।

মুক্তি কাউন্সিলের সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল হাকিম বলেন, পাহাড় এবং সমতলে ছাত্রসমাজের আওয়াজ সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে তুলে ধরতে হবে। কেবল নিজেদের সংগঠনের মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে বৃহত্তর স্বার্থে দেশের জনগণের আন্দোলনের সাথে সম্পৃক্ত হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, শোষণ-বৈষম্যের কাঠামো ভেঙ্গে ফেলার জন্য শোষিত শ্রেণীর সকলকে আন্দোলনে অংশ গ্রহণ করা প্রয়োজন। পাহাড়ে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং মেডিকেল কলেজ স্থাপনের ষড়যন্ত্র এবং সরকারের জাতি ধ্বংসের নীলনক্সা রুখতে পিসিপিকে ধারাবাহিক সংগ্রাম পরিচালনা করার আহ্বান জানান বক্তারা।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment