রাঙ্গামাটিতে কৃষি ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ঋণ বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন

রাঙ্গামাটি রিপোর্ট –

DC

তিন পার্বত্য জেলার অর্থনীতিতে যে অপার সম্ভাবনা রয়েছে তা সঠিকভাবে কাজে লাগানো গেলে এই তিন জেলা বাংলাদেশে অর্থনৈতিক ভাণ্ডার হিসাবে তৈরী করা সম্ভব হবে বলে মন্তব্য করেছেন রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মো: সামসুল আরেফিন। তিনি বলেন, তিন পার্বত্য জেলা অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখতে পারে এমন চিন্তা করে ব্যাংক ও বিদেশী দাতা গোষ্ঠীগুলোকে কাজ করতে হবে।

আজ ১৪ অক্টোবর শনিবার বিকেলে রাঙ্গামাটি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সাংস্কৃতিক ইন্সটিটিউট মিলনায়তনে ব্যুরো বাংলাদেশ আয়োজিত কৃষি ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ঋণ বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মো: সামসুল আরেফিন একথা বলেন।

ব্যুরো বাংলাদেশ নির্বাহী পরিচারক জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: শহীদুল্লাহ। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন ব্যুারো বাংলাদেশের বিশেষ কর্মসূচির পরিচালক মো: সিরাজুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, ব্যুরো বাংলাদেশের মো: মোশাররফ হোসেন।

জেলা প্রশাসক তার ভাষণে বলেন, পার্বত্য তিন জেলা একটি অপার সম্ভাবনাময় অঞ্চল। এই তিন জেলাকে যদি আমরা সঠিক ভাবে অর্থনৈতিক দিক দিয়ে চিন্তা করতে পারি, তাহলে রাঙ্গামাটিকে বাংলাদেশের অর্থনীতির ভাণ্ডার হিসেবে তৈরী করা সম্ভব।

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি রাঙ্গামাটি। এই পার্বত্য অঞ্চলে এক দিকে রয়েছে পাহাড়, জঙ্গল, এবং বিশাল কাপ্তাই হ্রদ, পাশাপাশি রয়েছে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র নানান জনগোষ্ঠীর মিলন মেলা। এই সৌন্দর্য যে দেখবে না, সে বাংলাদেশের অনেক সৌন্দর্যের উপভোগ থেকে বঞ্চিত হবে। তিন পার্বত্য জেলার অপার সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে দেশের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি বাড়ানোর উপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, ১৯৯০ সালে টাংগাইল থেকে শুরু হয়ে বর্তমান ২০১৫ সাল পর্যন্ত ব্যুরো বাংলাদেশ -এর কার্যক্রম চলছে। পঁচিশ বছরের দীর্ঘ এই পথ পরিক্রমায় ব্যুরো বাংলাদেশ বর্তমানে ৬৮৩ টি শাখা এবং প্রায় ছয় হাজার কর্মী নিয়ে এক বিশাল পরিবার গড়ে তুলেছে। এই পরিবারে বর্তমানে ১৩ লক্ষেরও বেশী দরিদ্র জনগোষ্ঠীর সমস্যা সমাধানে ব্যুরো বাংলাদেশ কাজ করে যাচ্ছে। ব্যুরো বাংলাদেশ দেশের দরিদ্র মানুষর ক্ষমতায়ন ও জীবন যাত্রার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে সারা দেশে যে ভাবে শ্রম দিয়ে যাচ্ছে তা অত্যান্ত প্রশংসনীয়। দীর্ঘ এই ২৫ বছরের পথ চলায় তিন পার্বত্য জেলায় কোন শাখা না থাকায় ব্যুরো বাংলাদেশ তিন পার্বত্য জেলার ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে কাজ করার উদ্যোগ গ্রহণ করে। তারই অংশ হিসাবে শুরুতেই রাঙ্গামাটির ৯ জন সদস্য কে প্রায় ৮ লক্ষ টাকা স্বল্প আয়ভুক্ত পেশাজীবী ও কৃষি ঋণ বিতরণের মধ্যে দিয়ে যাত্রা শুরু করলো ব্যুরো বাংলাদেশ।

এ কর্মসূচির আওতায় আদা চাষের জন্য অনিতা তালুকদারকে ১ লক্ষ টাকা এবং প্রণিতা চাকমাকে ১লক্ষ ৫০ হাজার টাকা, পল্ট্রি ফার্ম করার জন্য রিংকু দাশকে ১ লক্ষ টাকা, বৃক্ষ পরিচর্যার জন্য ক্যামিলিনা চাকমাকে ১ লক্ষ টাকা, আনারস চাষের জন্য অমিত ত্রিপুরাকে ৪০ হাজার টাকা, হলুদ চাষের জন্য শ্যামল কান্তি চাকমাকে ৫০ হাজার টাকা, আদা চাষের জন্য সুদত্ত বিকাশ চাকমাকে ১ লক্ষ টাকা, পশু পালনের জন্য সুগত প্রিয় চাকমাকে ১লক্ষ টাকা ও আনারস চাষের জন্য জীবন চাকমাকে ৫০ হাজার টাকা ঋণ প্রদান করা হয়।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment