রাঙ্গামাটির কাউখালীতে ব্লাস্টের দিনব্যাপী সচেতনতা মেলা – ২০১৫

Raja

মানবাধিকার লঙ্ঘন ও সমাজ বিরোধী কার্যকলাপ থেকে যুব সমাজসহ সবাইকে বিরত থাকার আহ্বান  জানিয়েছেন চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিষ্টার রাজা দেবাশীষ রায়।

অধিকার রক্ষার ক্ষেত্রে সামাজিক নেতৃবৃন্দের উপর অনেক দায়িত্ব বর্তায়। সামাজিক ব্যবস্থায় পুরানো অনেক রীতি অনেক সনাতনী ধারা যেমন পরিবর্তনীয় সমাজে বদলেছে তেমনি মানবাধিকার অধিকার এই বিষয়গুলো সম্পর্কে অারও সচেতনতা বোধ থাকাটাও জরুরী। তিনি এই ধরনের মেলা আরও তৃণমূল পর্যায় ভিন্ন ভাষাভাষী গোষ্ঠীর মাঝে করার আহ্বান জানান যাতে সচেতনতা বোধ-এর সাথে তথ্য অধিকারের বিষয়টা সর্বাগ্রে জাগ্রত হয়।

আজ রোববার রাঙ্গামাটির কাউখালী উপজেলাধীন ঘাগড়া ইউনিয়নের ঘাগড়া উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে ব্লাষ্ট কর্তৃক আয়োজিত দিনব্যাপী আইনী সচেতনামূলক মেলার আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড এন্ড সার্ভিসেস ট্রাষ্ট রাঙ্গামাটি ইউনিটের উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ব্লাষ্টের রাঙ্গামাটি ইউনিটের উপদেষ্টা এডভোকেট পরিতোষ কুমার দত্ত। বিশেষ অতিথি ছিলেন কাউখালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস, এম চোধুরী, রাঙ্গামাটি সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার চিত্ত রজ্ঞন পাল, সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, এডভোকেট কক্সি তালুকদার, মানবাধিকার কর্মী টুকু তালুকদার, এডভোকেট শ্রীজ্ঞানী চাকমা, প্রথম আলো রাঙ্গামাটির সিনিয়র সাংবাদিক হরি কিশোর চাকমা, কাউখালী উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এ্যানি চাকমা কৃপা ও ঘাগড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা চন্দ্রা দেওয়ান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ব্লাস্ট রাঙ্গামাটি ইউনিটের সমন্বয়কারী এ্যাডভোকেট জুয়েল দেওয়ান।

আলোচনা সভায় সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন রাঙ্গামাটি ইউনিটের মেডিয়েশন অফিসার রাঙাবী তঞ্চঙ্গ্যা ও মেলার সার্বিক ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে ছিলেন নান্টু মার্মা ও কনিম চাকমা।

সভাপতি এডভোকেট পরিতোষ কুমার দত্ত তার বক্তব্যে বলেন, ব্লাস্ট সবসময় গরীব দুঃখী অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের প্রয়োজনীয় আইনী সহযোগিতা দিয়ে আসছে সম্পুর্ণ বিনামূল্যে যা সমাজে বৈষম্য কমাতে সহায়ক হিসেবে কাজ করছে।

আলোচনা সভা শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।  দিনব্যাপী আয়োজিত এ মেলায় আইন সহায়তা বিষয়ক বিভিন্ন প্রকাশনা, লিফলেট, পোষ্টার, ফেস্টুন সম্বলিত ব্লাস্ট স্টল, রাঙ্গামাটি কোতয়ালী থানার  ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার এবং স্থানীয় এনজিও আশিকা মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্র এবং সাস -এর স্টল দেওয়া হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে চাকমা রাজা দেবাশীষ রায় আরও বলেন, সংবিধানে ষ্পষ্টভাবে বলা আছে কারো প্রতি কোন বৈষম্য করা যাবে না । অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর জন্য আলাদা আইন করা যেতে পারে সেটাও সংবিধানে বলা আছে।

বিশেষ অতিথি এস এম চৌধুরী বলেন, প্রেস এবং ইলেকট্রনিকস মিডিয়া এখন অনেক শক্তিশালী যার ফলে আগে নারী নির্যাতনের ঘটনা অগোচরে থাকতো, কিন্তু এখন তা সম্ভব নয়। তাছাড়া সচেতনতা বোধও এ ধরনের ঘটনা রোধ করছে এবং অপরাধীরা প্রাপ্য শিক্ষা পাচ্ছে, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীও এ ব্যাপারে তৎপর।

মানবাধিকার ও নারী অধিকার নেত্রী টুকু তালুকদার বলেন, সবাই যদি যার যার দায়িত্ব পালন করে এবং অধিকারের  ক্ষেত্রে  সচেতন  থাকে  তাহলে  সমাজে  একটা  ইতিবাচক  পরিবর্তন  আসবে। তবে অধিকার রক্ষার কথা বলে তা যাতে স্বেচ্ছাচারিতার পর্যায় না যায় সে বিষয়েও খেয়াল রাখতে হবে।

উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এ্যানি চাকমা বলেন, পার্বত্য এলাকায় নারীরা এখনো সম্পত্তির অধিকার পায়নি। কিছু কিছু ক্ষেত্রে নারীরা সম্পত্তি পেলেও সেটা সার্বজনীন নয়।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment