রাঙ্গামাটি পৌর নির্বাচনে সবচেয়ে বিত্তবান প্রার্থী হাবিবুর রহমান

Election

রাঙ্গামাটি পৌরসভা নির্বাচনে হলফনামায় পরিবেশিত তথ্য অনুযায়ী প্রতিদ্বন্দ্বী সাত মেয়র প্রার্থীর মধ্যে সবচেয়ে বেশী সম্পদ ও আয় রয়েছে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিবের।  তার নির্বাচনী প্রতীক হচ্ছে জগ।

উল্লেখ্য, এবার রাঙ্গামাটি পৌর সভা নির্বাচনে ৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী আকবর হোসেন চৌধুরী, ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে বিএনপি দলীয় প্রার্থী সাইফুল ইসলাম চৌধুরী ভূট্টো ও লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে জাতীয় পার্টির দলীয় প্রার্থী ডা: শিব প্রসাদ মিশ্র, নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম স্বতন্ত্র (জন সংহতি সমিতি সমর্থিত) প্রার্থী ডা: গঙ্গা মানিক চাকমা, জগ প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হাবিবুর রহমান, মোবাইল ফোন প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের আরেক বিদ্রোহী প্রার্থী অমর কুমার দে ও কম্পিউটার প্রতীক নিয়ে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী রবিউল আলম রবি।

রাঙ্গামাটি পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থীদের হলফনামায় পরিবেশিত তথ্য অনুযায়ী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিবের ব্যবসা, বাড়ি ভাড়া ও দোকান ভাড়া থেকে বাৎসরিক আয় হচ্ছে ১৫ লাখ ১৭ হাজার টাকা। এর মধ্যে কৃষি থেকে ৫ হাজার, বাড়ী ভাড়া ৪ লাখ, ব্যবসা থেকে ৯২ হাজার ৯ শ টাকা এবং চাকুরি ও নির্ভরশীলদের আয় ১০ লাখ ২০ হাজার টাকা। তার অস্থাবর সম্পদ রয়েছে নগদ ৫৫ হাজার টাকা ও ব্যাংকে ৮ লাখ ২১ হাজার টাকা, ৩ ভরি স্বর্ণসহ ইলেকট্রনিক্স ও আসবাবপত্র। স্থাবর সম্পদের মধ্যে পৈত্রিক সূত্রে কৃষি জমির পরিমাণ ২৬ একর ৫১ শতক, অকৃষি জমি ৬৭ একর ২১ শতক, টিনসেট বাড়ি ১০টি (চট্টগ্রাম), এপার্টমেন্ট ১টি, এক ইউনিট বাড়ী ১টি ও একটি সেমিপাকা বাড়ি।

সম্পদ ও আয়ের দিক দিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন স্বতন্ত্র (পার্বত্য চট্টগ্রাম জন সংহতি সমিতি সমর্থিত) প্রার্থী ডা. গঙ্গা মানিক চাকমা। তার চিকিৎসা ও কৃষি খাত থেকে বাৎসরিক আয় ৭ লাখ ৪০ হাজার টাকা। অস্থাবর সম্পদ নগদ ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা, বন্ড ১ লাখ টাকা, স্থায়ী আমানত ৩০ হাজার টাকা, স্ত্রীর নামে ৮০ হাজার, ৩০ ভরি স্বর্ণ ছাড়াও ইলেকট্রনিক্স ও আসবাবপত্র রয়েছে। স্থাবর সম্পদের মধ্যে কৃষি জমি ৫ একর, স্ত্রীর নামে ৫ একর, নির্ভরশীলদের নামে ১০ একর, যৌথ মালিকানায় কৃষি জমি ৪০ কানি এবং অকৃষি জমি ৬ শতক ও ১টি বাড়ি রয়েছে।

সম্পদশালীর মধ্যে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছেন বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী রবিউল আলম রবি (কম্পিউটার)। তার বাৎসরিক আয় ৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা। অস্থাবর সম্পদের মধ্যে নগদ ও ব্যাংকে জমা ১ লাখ ৩৫ হাজারসহ ইলেকট্রনিক্স ও আসবাবপত্র। স্থাবর সম্পদ রয়েছে কাঁচা বাড়ি ১টি।

জাতীয় পার্টির প্রার্থী ডা.শিব প্রসাদ মিশ্রের অস্থাবর সম্পদ রয়েছে ১টি মোটর সাইকেল, ২টি স্ক্র্যাপ গাড়ি, ৫ ভরি ৪ আনা স্বর্ণসহ ছাড়াও ইলেকট্রনিক্স ও আসবাবপত্র।

বিএনপি’র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র সাইফুল চৌধুরীর বাৎসরিক আয় মেয়রের সন্মানী ভাতা থেকে ২ লাখ ৪০ হাজার টাকা। অস্থাবর সম্পদ নগদ ও ব্যংকে ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা, ৩ ভরি স্বর্নসহ ইলেকট্রনিক্স ও আসবাবপত্র।

আওয়ামী লীগ প্রার্থী আকবর হোসেনের ব্যবসা থেকে বাৎসরিক আয় ২ লাখ ৭২ হাজার টাকা। স্থাবর সম্পদের মধ্যে নগদ ও ব্যাংকে ১ লাখ এক হাজার টাকা, স্বর্ণ ৫ তোলা, মোবাইল ১টি, খাট ১টি। স্থাবর সম্পদের মধ্যে রয়েছে বরকলের ছোট হরিণা বাজারের বাজাফান্ডের দোকান প্লট ১টি।

আওয়ামী লীগের অপর বিদ্রোহী প্রার্থী অমর কুমার দে-এর ব্যবসা থেকে আয় ২ লাখ ৬০ হাজার টাকা। অস্থাবর সম্পদ রয়েছে নগদ ও ব্যাংকে ৬ লাখ ৯২ হাজার টাকা, স্বর্ণ দেড় ভরিসহ ইলেকট্রনিক্স ও আসবাবপত্র। তার স্থাবর সম্পদ রয়েছে কৃষি জমি ৬ কানি, পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া দ্বিতল বাড়ী ও যৌথ মালিকাধীন দালানের এক অংশ।

রাঙ্গামাটি পৌর সভায় মোট ভোটার রয়েছেন ৫৮ হাজার ৯১৬ জন। তন্মধ্যে পুরুষ ভোটার ৩২ হাজার একশত ৮৬ ও মহিলা ভোটার রয়েছেন ২৬ হাজার সাতশত ৩০ জন।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment