বান্দরবানে বিএনপির বহিষ্কৃত নেতাদের বিক্ষোভ ও জুতা-ঝাড়ু মিছিল

বান্দরবান রিপোর্ট –

Bban

বান্দরবান পৌরসভার মেয়র পদে মনোনয়ন নিয়ে সৃস্ট মতবিরোধের কারণে এবং মেয়র প্রার্থীর প্রতীক ধানের শীষের বিপক্ষে অবস্থান নেয়ার অভিযোগে বান্দরবান জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল কুদ্দুছ ও পৌর বিএনপির সভাপতি নাসির উদ্দিন চৌধুরীকে ২৪ ঘন্টার কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া এবং জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম ও জেলা বিএনপির যুব বিষয়ক সম্পাদক মশিয়ুর রহমান মিঠুনকে দল থেকে বহিষ্কার করার প্রতিবাদে রোববার বিকালে একটি বিক্ষোভ ও ঝাড়ু-জুতা মিছিল শহর প্রদক্ষিণ করে উন্মুক্ত মঞ্চে এসে শেষ হয়। এরপর সেখানে পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল কুদ্দুছ, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট কাজী মাহতুল হোসেন যত্ন, জেলা স্বেচ্ছা সেবক দলের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম, জেলা বিএনপির সভাপতি নাসির উদ্দিন চৌধুরী, জেলা বিএনপির যুব বিষয়ক সম্পাদক মশিয়ুর রহমান মিঠুন সহ আরো অনেকে। সমাবেশে জেলা ছাত্রদলের ও যুবদলের একাংশ সহ জেলা বিএনপির মধ্যম সারির কয়েকজন নেতা উপস্থিত ছিলেন। সভা পরিচালনা করেন ছাত্রদলের মো: মুসলিম উদ্দিন।

সমাবেশে বিএনপির কেন্দ্রীয় কয়েকজন নেতার তীব্র সমালোচনা করে বক্তারা বলেন, বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা না হলে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকেও বান্দরবানে ঢুকতে দেয়া হবে না। তারা কেন্দ্রীয় বিএনপির উপজাতীয় বিষয়ক সম্পাদক মিসেস মাম্যাচিং এবং ধানের শীষের মেয়র প্রার্থী জাবেদ রেজার তীব্র সমালোচনা করে ধানের শীষ প্রতীকে ভোট না দিয়ে তাকে প্রতিহত করার জন্য বিএনপি নেতা কর্মীদের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, প্রয়োজনে প্রতিটি ওয়ার্ডে জাবেদ রেজা বিরোধী টিম গঠন করে ৩০ ডিসেম্বর ভোট প্রদান না করার ব্যবস্থা করা হবে। তারা বলেন, কেন্দ্রীয় নেতারা টাকার বিনিময়ে যোগ্য প্রার্থীকে মনোনয়ন না দিয়ে জাবেদ রেজাকে মনোনয়ন প্রদান করে বান্দরবান থেকে বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করার ষড়যন্ত্র করছে। তারা সমাবেশে আওয়ামী লীগেরও সমালোচনা করেন। কোন প্রতীকে ভোট প্রদান করবে সমাবেশে এই বিষয়ে তারা কোন সুষ্পষ্ট নির্দেশনা দেয়া থেকে বিরত রয়েছেন।

সমাবেশ শেষে বিক্ষোভকারীরা চৌধুরী মার্কেটের বিএনপি অফিসে গিয়ে বৈঠকে মিলিত হন। জেলা বিএনপির অনেক নেতা এই বিষয়ে মন্তব্য করে বলেছেন এই সমাবেশে বিএনপি সভাপতি সাচিংপ্রু জেরী উপস্থিত না থাকলেও এই ব্যাপারে তার ইঙ্গিত রয়েছে বলে অনেকে মন্তব্য করেছেন।

উল্লেখ্য যে, বিগত উপজেলা নির্বাচনেও বিএনপির মনোনীত প্রার্থীর বিপক্ষে নির্বাচন করায় জাগাঙ্গীর আলম ও মশিউর রহমান মিঠুনকে বিএনপি থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। পরে অনেক তদবিরের পর তা প্রত্যাহার করা হয়।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment