রাঙ্গামাটি পৌর নির্বাচনে কারচুপির প্রতিবাদে জেএসএস-এর অবরোধ পালন

রাঙ্গামাটি রিপোর্ট –

Banarupa

গেলো ৩০ ডিসেম্বর ২০১৫ অনুষ্ঠিত রাঙ্গামাটি পৌরসভা নির্বাচনে কারচুপির প্রতিবাদে ও চলমান অসহযোগ আন্দোলনের অংশ হিসেবে আজ রাঙ্গামাটি জেলায় পার্বত্য চট্টগ্রাম জন সংহতি সমিতি (জেএসএস) -এর ডাকে সকাল সন্ধ্যা সড়ক ও নৌ পথ অবরোধ শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে। জন সংহতি সমিতির পক্ষ থেকে অবরোধের কর্মসূচি থাকলেও হরতাল হিসেবে পালিত হয়েছে দিবসটি। শহরের অভ্যন্তরে কোথাও গাড়ি চলতে দেয়া হয়নি, দোকানপাট-মার্কেট ছিল বন্ধ।

দুপুরে ঘাগড়ার মগাছড়ি এলাকায় যাত্রী নামিয়ে দিয়ে একটি সিএনজি ভাংচুর করে পিকেটাররা। এছাড়া আর কোথাও অপ্রীতিকর কোন ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

অবরোধের কারণে সকাল থেকে রাঙ্গামাটির সকল সড়ক ও নৌ পথে অভ্যন্তরীন ও দূরপাল্লার কোন যানবাহন এবং লঞ্চ চলাচল করেনি। শহরবাসীর চলাচলের একমাত্র বাহন অটোরিক্সাও চলেনি। এমনকি বনরূপা থেকে ভেদভেদী পর্যন্ত অনেক ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান ছিল বন্ধ।

শহরের অভ্যন্তরে একমাত্র চলাচলের মাধ্যম অটোরিক্সা চলাচল বন্ধ থাকায় জিম্মি হয়ে পড়েছে রাঙ্গামাটির সাধারণ মানুষ। পুরো রাঙ্গামাটি শহর অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। অবরোধ চলাকালে রাঙ্গামাটি শহরের ভিতরে যানবাহন চলাচল না করায় সাধারণ মানুষ পায়ে হেঁটে গন্তব্যে যেতে দেখা গেছে। শহরের বনরূপা, ভেদভেদী, কল্যাণপুরসহ বেশ কয়েকটি রাস্তায় অবরোধকারীরা পিকেটিং করেছে।

শহরের অন্যতম ব্যস্ততম বানিজ্যিক এলাকা বনরূপা বাজারের পেট্রোল পাম্প চত্বরে অর্ধশত নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে অবরোধের সমর্থনে পিকেটিং করেছে জেএসএস নেতাকর্মীরা। পিকেটিং চলাকালীন সময়ে মোটর সাইকেলসহ কোন প্রকার যান চলাচল করতে দেয়নি অবরোধকারীরা।

এসময় জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা তাদের নিজেদের মোটর সাইকেল নিয়ে অফিসে যাওয়ার চেষ্টা করলে বনরূপা বাজারে বেশ কয়েকটি মোটর সাইকেল আটকিয়ে তাদের পায়ে হেটে অফিসে যেতে বাধ্য করে অবরোধকারীরা।

শহরের বনরূপা, ভেদভেদী, কল্যাণপুর সহ বেশ কয়েকটি রাস্তায় অবরোধকারীরা পিকেটিং করেছে। শহরে বিভিন্ন পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ছিল। অবরোধ শেষে বিকাল ৪টায় শহরের পেট্রোল পাম্প চত্বরে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে অবরোধ সমর্থকরা।

পার্বত্য চট্টগ্রাম জন সংহতি সমিতির অভিযোগ জাল ভোট, ব্যাপক কারচুপি, কেন্দ্র দখল, ও হামলার মধ্য দিয়ে রাঙ্গামাটি পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। জনসংহতি সমিতি এই নির্বাচনকে প্রহসনমূলক বলে প্রত্যাখ্যান করে এ অবরোধের ডাক দেয়। এছাড়া চলমান অসহযোগ আন্দোলনের অংশ হিসেবেও এ কর্মসূচির অন্যতম কারণ ছিল বলে জানানো হয়।

পার্বত্য চট্টগ্রাম জন সংহতি সমিতি আহুত রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলায় আজকের সকাল-সন্ধ্যা সড়ক ও জলপথ অবরোধ কর্মসূচি সুষ্ঠু ও সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার সড়ক ও জলপথের সকল প্রকার যানবাহনের মালিক ও চালক সমিতি, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, সংশ্লিষ্ট প্রশাসন, সাংবাদিকসহ সর্বস্তরের পাহাড়ি-বাঙালি জনগণকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জানিয়েছে।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment