রাঙ্গামাটি জেলা নদী রক্ষা কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত

রাঙ্গামাটি রিপোর্ট –

DC

রাঙ্গামাটি জেলার নদীগুলোর নাব্যতা ফিরিয়ে আনতে উচ্চ পর্যায়ে ড্রেজিং করার প্রস্তাব পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মো: সামসুল আরেফিন। তিনি বলেন, বিশাল রাঙ্গামাটি হ্রদ সৃষ্টিতে যে সকল নদী রয়েছে তাতে পলি জমে নাব্যতা হ্রাস পেয়েছে। এই নদীগুলোর নাব্যতা ফিরিয়ে আনতে ড্রেজিং করা খুবই প্রয়োজন। নদীগুলোর নাব্যতা না থাকায় শুস্ক মৌসুমে নদীপথ প্রায় বন্ধ হয়ে যায়। এই নদীগুলোর পুরনো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে ড্রেজিং করার জন্য সরকারের কাছে প্রস্তাব পাঠানো হবে।

আজ বুধবার ২৭ জানুয়ারি রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত রাঙ্গামাটি জেলা নদী রক্ষা কমিটির প্রথম সভায় তিনি এ কথা বলেন।

রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মো: সামসুল আরেফিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) তানভীর সিদ্দিকী। রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর মো: রেজাউল করিম, কৃষি বিভাগের প্রতিনিধি তপন কান্তি পাল, রাঙ্গামাটি প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও সিএইসটিনিউজ২৪ -এর সম্পাদক মো: শামসুল আলম, রাঙ্গামাটি সাংবাদিক ফোরাম সভাপতি নন্দন দেবনাথসহ অন্যান্য সরকারি পদস্থ কর্মকর্তারা।

জেলা প্রশাসক বলেন, অতি বৃষ্টির ফলে রাঙ্গামাটি হ্রদের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় এবছর কাপ্তাই জল বিদ্যুৎ কেন্দ্রে রেকর্ড পরিমান বিদ্যুৎ উৎপাদন হয়েছে। তিনি বলেন, বর্তমানে হ্রদের পানি ধরে রেখে শুস্ক মৌসুমে যাতে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা যায় তার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। হ্রদের পানি বৃদ্ধির ফলে চাষাবাদ কিছুটা ব্যাহত হওয়ায় তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন বলেন, আগামীতে হ্রদের পানিও ধরে রাখতে হবে চাষাবাদও করতে হবে এই নিয়ে কী করা যায় তার প্রস্তাব দেয়ার জন্য কমিটির সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ জানান।

রাঙ্গামাটি হ্রদ বাঁচানো এবং হ্রদকে পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয় করে তুলতে হ্রদ এলাকায় অবৈধ দখলদারদের সরকারি ব্যবস্থাপনায় সরিয়ে নেয়ার চিন্তা ভাবনা করতে হবে, রাঙ্গামাটি হ্রদ ড্রেজিং এর মাধ্যমে হ্রদে মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি করে সরকারের রাজস্ব বাড়ানো এবং রাঙ্গামাটি হ্রদের নাব্যতা সৃষ্টি করে হ্রদে সারা বছর পানি ধরে রাখা যায়, সভায় সে ব্যবস্থা করার উপর জোর দেয়া হয়।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment