লংগদু আওয়ামী লীগ ভাইবোনছড়া ওয়ার্ডের উদ্যোগে যোগদান ও আলোচনা সভা

লংগদু রিপোর্ট –

DT

রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত জোট আন্দোলনের নামে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনা করে দেশকে অস্থিতিশীল করে রেখেছিল। তারা গণতন্ত্র এবং উন্নয়ন সহ্য করতে পারে না। মানুষ শান্তিতে থাকবে, হাসিমুখে জীবনযাপন করবে, তা ওদের সহ্য হয় না। তাই তারা সন্ত্রাস-বোমাবাজি করে দেশে ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়ে ক্ষমতায় আসতে চাই। কিন্তু তারা জানেনা ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়ে ক্ষমতায় আসা যায় না, ক্ষমতায় আসতে দেশের মানুষের ভালবাসা দরকার।

আজ বৃহস্পতিবার ১৮ ফেব্রুয়ারি ভাইবোনছড়া বাজারে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ৪নং ভাইবোনছড়া ওয়ার্ড শাখার উদ্যোগে যোগদান ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ভাইবোনছড়া ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো: সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামী লীগের গবেষণা সম্পাদক রফিকুল মাওলা, সাংগঠনিক সম্পাদক জমির উদ্দিন, নির্বাহী সম্পাদক প্রদীপ বড়ুয়া, লংগদু উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুল বারেক সরকার, রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জানে আলম প্রমুখ।

সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার আরো বলেন, বিএনপি-জামাতের দুঃশাসন. দুর্নীতি, সন্ত্রাস এবং পরের দুই বছরে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দমননীতির ফলে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা ছিল বিপর্যস্ত, বিশৃঙ্খলাপূর্ণ। আমরা দায়িত্বভার গ্রহণ করে সবক্ষেত্রে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনি। মানুষের মধ্যে আস্থা ও বিশ্বাস ফিরে আসে। বাংলাদেশ আজ উন্নয়নে অনেকদূর এগিয়ে গেছে। বিশ্বে আজ বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল।

তিনি বলেন, পার্বত্য অঞ্চলের মানুষ যাতে শান্তিতে থাকতে পারে এবং শান্তির সুবাতাস বয়ে নিতে বর্তমান সরকার শান্তিচুক্তি করেছে। কয়েকটি ধারা ছাড়া বেশ কিছু ধারা বাস্তবায়ন করা হয়েছে। আর এই শান্তিচুক্তির ফলে এলাকায় উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রয়েছে। তবে কিছু কিছু মানুষ চায় না এখানে উন্নয়ন হোক। তাই তারা চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে এই ধারাকে বাধাগ্রস্থ করতে চায়।

তিনি বলেন, যোগাযোগ খাতে আমরা ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। যেখানে মানুষ কখনো চিন্তা করেনি রাস্তা হবে সেখানে রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। যেখানে মানুষ মনে করেনি কালভার্ট হবে সেখানে কালভাট করা করা হয়েছে, ব্রিজ করা হয়েছে। শিক্ষাখাতে উন্নয়নে জন্য যে সকল উপজেলায় সরকারি স্কুল ও কলেজ নাই সেখানে একটি করে স্কুল ও কলেজ করা হয়েছে। বিনামূল্যে বই বিতরণ ও স্কুলে বিনামূল্যে পড়ালেখার সুযোগ করে দেয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, কাপ্তাই বাঁধের কারণে যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তারা যেন বিদ্যুৎ পায় তার জন্য বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার প্রত্যেক উপজেলায় জরুরীভাবে বিদ্যুতের আলো পৌছাতে কাজ করে যাচ্ছে। যেখানে বিদ্যুৎ নেই সেখানে বিদ্যুতের আলো পৌছে যাবে। তেমনি লংগদুর ভাইবোনছড়াও কিছুদিনের মধ্যে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবে।

সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা শান্তিপ্রিয় জাতি, সন্ত্রাস সহিংসতায় বিশ্বাসী নয়। বাংলাদেশ সাম্প্রায়িক সম্প্রীতির দেশ, হাজার বছর ধরে সব ধমের্র মানুষ শান্তিতে বসবাস করছে। সবাই নিজ নিজ ধর্ম স্বাধীনভাবে পালন করছেন। কাউকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে দেয়া হবে না। তাই আসুন বিপথগামীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে দলমত নির্বিশেষে একযোগে কাজ করি।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment