১৩ বছর পর কাপ্তাইয়ের রাইখালী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন

কাপ্তাই রিপোর্ট –

UP

কাপ্তাই উপজেলার ২ নং রাইখালী ইউনিয়নে গত ১৩ বছর কোন নির্বাচন হয়নি। নির্বাচন না হওয়ায় স্থানীয় জনগণ তাদের পছন্দের প্রার্থী নির্বাচন করতে না পারার দুঃখ পোষণ করে আসছিলেন। তবে এবার জনগণের সেই আক্ষেপ দূর হবে বলে আশা করছেন সবাই। এবার আর কোন অজুহাতেই নির্বাচন বন্ধ রাখা যাবে না। তাই এবার নির্বাচনের মাধ্যমে পছন্দের চেয়ারম্যান নির্বাচন করতে পারবেন এই আশা সবার মনে দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে সর্বশেষ ২০০৩ সালে রাইখালী ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেই নির্বাচনে অংশি মারমা বিজয়ী হন। তবে ২০১১ সালের ২ অক্টোবর কাপ্তাই উপজেলায় ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও সীমানা জটিলতার কারণে রাইখালী ইউনিয়নের নির্বাচন স্থগিত হয়ে যায়। এরপর দীর্ঘ ৫ বছর পেরিয়ে গেলেও রাইখালী ইউনিয়নে আর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি। তখন থেকে অংশি চেয়ারম্যানই দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

ইতিমধ্যে নির্বাচন করার জন্য সম্ভাব্য প্রার্থীরা দলীয় মনোনয়ন পেতে দেন দরবার শুরু করেছেন। এতে এগিয়ে আছেন আওয়ামী লীগের একাধিক প্রার্থী। দলীয় মনোনয়ন পেতে সম্ভাব্য প্রার্থীরা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদক এমনকি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সাথেও যোগাযোগ শুরু করেছেন।

বিএনপি সমর্থিত রাইখালী ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান অংশি মারমা আবার প্রার্থী হতে ইচ্ছুক বলে তার একাধিক সমর্থক জানিয়েছেন। বিএনপি কাপ্তাই উপজেলা সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম তালুকদারও প্রার্থী হতে ইচ্ছুক। আওয়ামী লীগ সমর্থক ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মংক্য মারমা এবার চেয়ারম্যান হিসেবে প্রার্থী হতে ইচ্ছুক। এছাড়াও আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে আরো যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন মো: ইউসুফ কারবারী ও মংবা থুই মারমা। চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে জন সংহতি সমিতর সমর্থক ছাইয়া মং মারমার নামও শোনা যাচ্ছে।

নির্বাচন কমিশন সুত্রে জানা গেছে, এবার সীমানা জটিলতার কোন বিষয় থাকবে না। এমনকি মামলা করেও নির্বাচন স্থগিত রাখা যাবে না। সূত্র জানায়, আগে ব্যক্তি স্বার্থে আইনী প্রক্রিয়ায় গিয়ে কেউ কেউ নির্বাচন বন্ধ রাখতে পারতেন। কিন্তু এবার সেরকম সুযোগ কেউ পাচ্ছেন না।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment