লামায় পাহাড়িদের শত বছরের ভোগদখলীয় জায়গা জবরদখল

লামা রিপোর্ট –

Lama

বান্দরবানের লামা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের সাঙ্গু মৌজায় মোহাম্মদিয়া ট্রি প্লান্টেশন প্রকাশ লাদেন গ্রুপ কর্তৃক পাহাড়িদের শত বছরের ভোগদখলীয় জায়গা অবৈধ জবরদখল করার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল ২৫ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড বনফুর বাজারে উচ্ছেদ আতঙ্কে থাকা পাহাড়িরা এক প্রতিবাদ সমাবেশ করে।

ক্ষতিগ্রস্তরা জানায়, ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের সাঙ্গু মৌজার চিনিঝিরি ম্রো পাড়া সংলগ্ন শত শত বছর ধরে প্রায় ৭০ একর পাহাড়ে স্থানীয় পাহাড়িরা জুম চাষ করে আসছে। গত ১৮ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় ম্রো, ত্রিপুরা ও মার্মা সম্প্রদায়ের লোকজন সেখানে জুমচাষ ও লাকড়ি কাটতে গেলে মোহাম্মদিয়া গ্রুপের কর্মচারীরা বাধা দেয় এবং মামলা করার হুমকী দেয়।

পরে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি লামা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক অভিজিৎ ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন যাতে করে পাহাড়িরা মনে করে মোহাম্মদিয়া ট্রি প্লান্টেশন কর্তৃপক্ষ তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে।

এদিকে মামলার ভয়ে সহজ সরল ম্রো, ত্রিপুরা ও মারমা জনগোষ্ঠীদের বাড়ি ঘর ছাড়ার উপক্রম হয়েছে বলে জানায় ২৮৫নং সাঙ্গু মৌজার হেডম্যান থংপ্রে ম্রো।

নিরুপায় হয়ে উচ্ছেদ আতঙ্কে থাকা পাহাড়িরা বৃহস্পতিবার বনফুর বাজারে এক প্রতিবাদ সমাবেশ করে। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ২৮৫নং সাঙ্গু মৌজার হেডম্যান থংপ্রে ম্রো। এ সময় সেখানে আরো উপস্থিত ছিলেন, গয়ালমারা ত্রিপুরা পাড়া কার্বারী মোক্তারাম ত্রিপুরা, নয়া ম্রো পাড়ার কার্বারী রিং ইয়ং ম্রো, ত্রিশডেবা পাড়ার কার্বারী অংক্যয় মার্মা, রাজা পাড়ার বাসিন্দা ও পিসিপি নেতা চংপাত ম্রো সহ সাঙ্গু ও ইয়াংছা মৌজার শতাধিক লোকজন।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, রক্ত দেব তবু মাটি দেব না। শত বছরের ভোগদখলীয় জায়গা কাউকে অবৈধ দখল করতে দেওয়া হবে না। প্রশাসনের কাছে প্রতিকার চাইতে আগামী ৪ মার্চ বান্দরবান জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মানব বন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান করা হবে। লাদেন গ্রুপকে কোনভাবেই চিনিঝিরি পাড়া এলাকায় ঢুকতে দেয়া হবে না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে লামা থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক অভিজিৎ বলেন, সাঙ্গু মৌজার মোহাম্মদিয়া ট্রি প্লানটেশন তাদের বাগানের গাছ কে বা কারা কেটে নিয়ে গেছে বলে একটি অভিযোগ করেছে। বিষয়টি তদন্ত করতে বুধবার ফোর্স নিয়ে তদন্ত করতে যাই।

জায়গার মালিকানা ও অভিযোগের বিষয়ে মোহাম্মদিয়া ট্রি প্লান্টেশনের দায়িত্বশীল কাউকে না পাওয়ায় তাদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment