বাঘাইছড়িতে আওয়ামী প্রার্থীর প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারীকে অপহরণ

ডেস্ক রিপোর্ট –

Kidnap

বাঘাইছড়ি উপজেলায় নির্বাচনোত্তর আতংক ছড়াতে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারীকে অপহরণ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। রোববার বিকালে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী সুমন চাকমার দুই সমর্থককে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানের দিকে নিয়ে গেছে স্থানীয় দলের সন্ত্রাসীরা। বাঘাইছড়ির তুলাবান এলাকায় এই ঘটনা ঘটে বলে আওয়ামী লীগ সূত্র নিশ্চিত করেছে।

অপহৃতরা হলেন প্রস্তাবকারী সুকান্ত চাকমা ও সমর্থনকারী প্রজ্ঞান চাকমা। তারা উভয়েই উপজেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত এবং আসন্ন ইউপি নির্বাচনে ৩৩নং মারিশ্যা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সুমন চাকমার জমাকৃত মনোনয়ন পত্রে প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারী হিসেবে স্বাক্ষর করেছিলেন। পার্বত্য চট্টগ্রাম জন সংহতি সমিতির লোকেরা এই অপহরণ ঘটনার সাথে জড়িত বলে বাঘাইছড়ির পৌর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দাবী করা হয়েছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়ক মো: আলী হোসেন, যুগ্ম আহবায়ক জমির হোসেন, সদস্য সচিব গিয়াস উদ্দিন মামুন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, দলীয় মনোনীত প্রার্থী সুমন চাকমার প্রস্তাবকারী সুকান্ত চাকমা ও সমর্থনকারী প্রজ্ঞান চাকমাকে রোববার বিকেল পাঁচটার সময় তুলাবানস্থ তাদের নিজ বাড়ি থেকে অস্ত্রের মুখে তুলে পূর্বদিকে নিয়ে যায়। সন্তু লারমা নেতৃত্বাধীন জেএসএস’র সশস্ত্র গ্রুপের সন্ত্রাসীরা এই ঘটনা ঘটিয়েছে বলে দাবী করেছে বাঘাইছড়ি আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

বিষয়টি বিজিবিকে অবহিত করা হয়েছে। এই ব্যাপারে বাঘাইছড়ি থানায় দলীয়ভাবে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলেও উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

আওয়ামী লীগ মনোনীত মারিশ্যা ইউপি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সুমন চাকমা সন্তু লারমা সমর্থিত সশস্ত্র জেএসএস কর্তৃক সমর্থনকারী সুকান্ত  চাকমা ও প্রস্তাবকারী প্রজ্ঞান চাকমাকে অপহরণের সত্যতা স্বীকার করেন এবং অপহরণের কিছুক্ষণ পর তাদের দুইজনকে ছেড়ে দিয়েছে বলেও জানান তিনি। তবে তাদের দুইটি মোবাইল ফোন রেখে দিয়েছে। এছাড়াও পদপ্রার্থী সুমন চাকমার স্ত্রী’র মোবাইল ফোনটিও জব্দ করেছে বলে জানা গেছে।

 

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment