রাঙ্গামাটি জেলা উন্নয়ন কমিটির সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত

প্রেস রিপোর্ট –

BKetu

রাঙ্গামাটি হ্রদে মাছের প্রাকৃতিক প্রজনন নিশ্চিত করতে গত ১২ মে থেকে অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য হ্রদে সকল প্রকার মাছ শিকারের উপর নিষেধাজ্ঞা জারী করেছে জেলা প্রশাসন। গত মঙ্গলবার হ্রদে কার্প জাতীয় মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে। মাছ শিকার বন্ধকালীন অসাধু জেলেরা যাতে মাছ শিকার করতে না পারে সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি সকলকে সহযোগিতা প্রদানের আহ্বান জানিয়েছেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা। তিনি বলেন, রাঙ্গামাটি হ্রদ আমাদের জন্য একটি বড় সম্পদ। এ সম্পদকে কাজে লাগিয়ে আমাদের জেলার উন্নয়ন ঘটাতে হবে। এ জেলার উন্নয়নের স্বার্থে প্রতি মাসে পরিষদের উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভা হয়, তাই একইদিনে জেলা প্রশাসনে অন্য মিটিং বা সভার তারিখ নির্ধারণ না করার পরামর্শ দেন তিনি। ৬ষ্ঠ ধাপে আগামী ৪জুন জেলার ৪৯টি ইউপিতে নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে প্রশাসনের পাশাপাশি তিনি সকলকে সহযোগিতা করারও আহ্বান জানান।

বুধবার (২৫ মে ২০১৬) সকালে জেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত মে মাসের জেলা উন্নয়ন কমিটির সমন্বয় সভায় সভাপতির বক্তব্যে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা এ কথা বলেন।

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম জাকির হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় পুলিশ বিভাগের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: শহিদ উল্লাহ, রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি হিসেবে সহকারী কমিশনার মো: আক্তারুজ্জামান, রাঙ্গামাটি পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা ছাদেক আহমদসহ জেলার বিভিন্ন বিভাগীয় প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, রাঙ্গামাটি হ্রদে মাছ শিকারের উপর নিষেধাজ্ঞা জারী করার পর থেকে নৌ-পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে এবং ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি পয়েন্টে ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। তিনি জেলার ভুয়া চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের লক্ষ্যে তালিকা প্রদানের জন্য সিভিল সার্জনকে অনুরোধ জানান। এছাড়া আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

পৌর মেয়র বলেন, পৌর শহরের সৌন্দর্য বর্ধনের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে পৌরসভা কর্তৃক বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে এবং তা বাস্তবায়নও হচ্ছে। শহরে কিচেন মার্কেট, রাস্তাঘাট মেরামত, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাশে খালি জায়গায় পর্যটকদের জন্য বিশ্রামাগার নির্মাণ, শহরকে দুর্গন্ধমুক্ত রাখতে রাতের মধ্যে মার্কেট ও বাজারের ময়লা অপসারণসহ বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ করা হচ্ছে। তিনি এ সকল প্রকল্প বাস্তবায়নে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

রাঙ্গামাটি প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন রুবেল জানান, রাঙ্গামাটি শহরে ভুয়া চিকিৎসক ও ভেজাল ঔষুধের বিক্রি বেড়ে গেছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণের অনুরোধ জানান তিনি।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তা জানান, বর্তমানে শহরের কালী মন্দির তবলছড়ি সংযোগ সেতুটি নির্মাণাধীন রয়েছে। চলতি বছরের জুনের মধ্যে সেতুটির নির্মাণ সমাপ্ত হওয়ার টার্গেট রয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর প্রতিনিধি জানান, কাউখালীতে ফায়ার স্টেশন বসানোর কাজ ৯০ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া বাঘাইছড়িতে ফায়ার স্টেশন বসানোর বিষয়ে জায়গা নির্ধারণের জন্য সহসাই কর্মকর্তা প্রেরণ করা হবে।

জেলা খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তা বলেন, খাদ্য গুদামে বর্তমানে ২৫১০ মেট্রিক টন চাল মজুদ রয়েছে।

বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফিন্যান্স কর্পোরেশনের প্রতিনিধি জানান, গৃহ নির্মাণের জন্য তার প্রতিষ্ঠান হতে ১০% সুদে ঋণ প্রদান করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি জানান, বিএ এবং বিএসএস এ ভর্তির জন্য আগামী ২৩ জুন পর্যন্ত আবেদন করা যাবে।

রাঙ্গামাটি সরকারি কলেজের প্রতিনিধি জানান, প্রশাসনিক কাম কম্পিউটার ল্যাবের কাজ শুরু হলেও সেটা সঠিকভাবে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার কাজ করছে না। এ বিষয়ে সঠিকভাবে কাজ তদারকির জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানান।

এছাড়া সভায় উপস্থিত অন্যান্য বিভাগীয় কর্মকর্তাগণ স্ব-স্ব বিভাগের উন্নয়ন কাজের প্রতিবেদন সভায় পেশ করেন। চেয়ারম্যান বিভিন্ন বিভাগের সমস্যাবলী সমাধানে পরামর্শ প্রদান করেন ।

অরুনেন্দু ত্রিপুরা
২৫/০৫/২০১৬
জন সংযোগ কর্মকর্তা
রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ
ছবি এবং সংবাদ : লিটন শীল।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment