কল্পনা চাকমা অপহরণে জড়িতদের শাস্তির দাবীতে রাঙ্গামাটিতে বিক্ষোভ-সমাবেশ

রাঙ্গামাটি রিপোর্ট –

HWF

হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় নেত্রী কল্পনা চাকমা অপহরণের যথাযথ তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ ও অভিযুক্তদের শাস্তির দাবীতে আজ রোববার রাঙ্গামাটিতে  বিক্ষোভ-সমাবেশে করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম মহিলা সমিতি ও  হিল উইমেন্স ফেডারেশন।

কল্পনা চাকমার ২০তম অপহরণ দিবস উপলক্ষে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম মহিলা সমিতির জেলা কমিটির সহ-সভাপতি সোনা রাণী চাকমা। এতে বক্তব্য রাখেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জন সংহতি সমিতির সহ-তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সজীব চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম মহিলা সমিতির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সুপ্রভা চাকমা, ব্লাস্ট রাঙ্গামাটি জেলার সমন্বয়ক এ্যাডভোকেট জুয়েল দেওয়ান, পার্বত্য চট্টগ্রাম যুব সমিতির জেলা কমিটির শিক্ষা ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অমিতাভ তঞ্চঙ্গ্যা, পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক পুলক চাকমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের নেত্রী দীপা চাকমা।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, বিগত ২০ বছরেও অপহৃত কল্পনা চাকমার হদিশ না পাওয়া, অপহরণ ঘটনার যথাযথ তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ করতে না পারা, দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনতে না পারা’ সরকার তথা রাষ্ট্রের ব্যর্থতা এবং রাষ্ট্রের জন্য লজ্জাজনক বলে উল্লেখ করেন। কল্পনা অপরহরণ ঘটনার যথাযথ ন্যায়বিচার নিশ্চিতকরণে প্রধানমন্ত্রী, সরকার, বিচার বিভাগ ও আইন-শৃংখলা বাহিনীর দায়-দায়িত্ব রয়েছে।

এর আগে শহরের জন সংহতি সমিতির কার্যালয় থেকে একটি বিক্ষোভ-মিছিল বের হয়ে বনরূপা বাজার এলাকা প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসন কার্যালয় প্রাঙ্গণে গিয়ে শেষ হয়। এতে বিভিন্ন দাবী সম্বলিত প্লেকার্ড ও ফেস্টুন নিয়ে আদিবাসী নারীরা অংশ নেয়।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, এ পর্যন্ত পার্বত্য চট্টগ্রামে সংঘটিত জুম্ম নারীর উপর সহিংস ঘটনার একটিরও ন্যায়বিচার এবং অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত হয়নি এবং এভাবে একের পর এক অপরাধীদের বিচারহীনতার অপসংস্কৃতি অব্যাহত থাকলে এই দেশটি মধ্যম বা উন্নত দেশে পরিণত না হয়ে পিশাচ ও অপরাধীদের দেশে পরিণত হবে।

উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সালের ১২ জুন রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার নিউ লাইল্যাঘোনা গ্রাম থেকে কল্পনা চাকমা অপহৃত হন। সিআইডির দেয়া চুড়ান্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে আদালত মামলা পুনঃতদন্তের জন্য জেলা পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দিয়েছেন।

কল্পনা চাকমা অপহরণকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত না হওয়ায় পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারা দেশে নারীদের উপর নির্যাতন, নিপীড়ন, হত্যা, ধর্ষণ ইত্যাদি উদ্বেগজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে বলে উল্লেখ করে অবিলম্বে অপহরণ ঘটনার যথাযথ তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ ও অপহরণকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের নিকট জোর দাবী জানান।

এছাড়া সমাবেশে পার্বত্য চট্টগ্রাম সমস্যার রাজনৈতিক সমাধান ও এই অঞ্চলে শান্তি ও উন্নয়ন নিশ্চিত করণ এবং জুম্ম নারীদের নিরাপত্তা বিধান ও তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে অবিলম্বে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের জন্য সরকারের নিকট জোর দাবী জানানো হয়।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment