জানুয়ারি থেকেই বিতরণ করা হবে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর নিজস্ব ভাষার বই

অনলাইন ডেস্ক –

NINahid

২০১৭ শিক্ষাবর্ষ থেকে চাকমা, মারমা, ত্রিপুরাসহ ৫টি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের জন্য নিজ ভাষায় প্রাক প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন বই দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আগামী বছর চাকমা, মারমা, ত্রিপুরা, সাদরি ও গারো ভাষায় নতুন বই বিতরণ করা হবে।

মঙ্গলবার জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) মিলনায়তনে আয়োজিত ২০১৭ শিক্ষাবর্ষের বিনামূল্যের পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণসংক্রান্ত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী এ কথা জানান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, প্রত্যেকেই নিজের ভাষায় সবচেয়ে বেশি পারদর্শী হয়। তাদের ভাষায় বই পেয়ে তারা যেমন আনন্দিত হবে, তেমনি এটি তাদের পাঠগ্রহণেও সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

শিক্ষামন্ত্রী আরো বলেন, প্রতি বছরের মত আগামী বছরে ১ জানুয়ারিতে দেশের পাঠ্যপুস্তক উৎসবে ৩৬ কোটি ৩ লাখ ১৮ হাজার ৯৭৯টি বই বিতরণ করা হবে। গত বছর যা ছিল ৩৩ কোটি ৪৫ লাখ ১৮ হাজার ৬৩৫।

এনসিটিবি চেয়ারম্যান নারায়ণ চন্দ্র সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন ও অতিরিক্ত সচিব ড. মোল্লা জালাল উদ্দিন প্রমুখ।

গেলো শনিবার জাতীয় সংসদদে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়েও এ কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী।

আসছে জানুয়ারি মাসেই নতুন বই বিতরণ করা হবে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমরা পাঁচটি নৃ-গোষ্ঠীর ভাষায় বই ছাপছি। সেই সঙ্গে মানসম্মত শিক্ষা দিতে প্রায় ১০ লাখ শিক্ষককে প্রশিক্ষণ দিয়েছি।

শিক্ষামন্ত্রী সংসদে বলেন, আমাদের লক্ষ্য বিশ্বমানের শিক্ষা। শুধু জ্ঞান এবং প্রযুক্তি দিয়ে মাথা ভর্তি করলেই চলবে না। সেই সঙ্গে সৎ, নিষ্ঠাবান, ভালো মানুষ তৈরি করতে হবে। নতুন প্রজন্মকে দেশপ্রেমিক মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। প্রযুক্তি শুধু ভালো কাজেই লাগে না, খারাপও করে। এই যেমন আমাদের ব্যাংকের টাকা চুরি করে নিয়ে গেল। তাই আমাদের লক্ষ্য ভালো মানুষ ও দেশপ্রেমিক মানুষ গড়ে তোলা।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment