আস্থা রাখুন, সন্ত্রাসীদের নির্মূল করবই : শেখ হাসিনা

অনলাইন ডেস্ক –

PM

.

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের ওপর আস্থা রাখুন। সন্ত্রাসীদের নির্মূল করে বাংলাদেশকে একটি শান্তিপূর্ণ রাষ্ট্রে পরিণত করবই।

শনিবার রাতে রেডিও ও টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে তিনি এ কথা বলেন। হামলায় নিহত ব্যক্তিদের স্মরণে আগামীকাল থেকে দুই দিনের রাষ্ট্রীয় শোকও ঘোষণা করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের উপর আস্থা রাখুন। ৩০ লাখ শহীদ এবং দুই লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব আমরা যে কোনো মূল্যে রক্ষা করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। দেশবাসীকে সঙ্গে নিয়ে যে কোনো মূল্যে আমরা ষড়যন্ত্রকারীদের চক্রান্ত প্রতিহত করব।’

প্রধানমন্ত্রী জেলা-উপজেলা পর্যায়ে সন্ত্রাস বিরোধী কমিটি, কম্যুনিটি পুলিশ এবং সাধারণ মানুষকে সম্পৃক্ত করে সন্ত্রাস মোকাবেলায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

যারা কিশোর ও যুবকদের বিপথে পরিচালিত করছেন তাদের উদ্দেশে করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মানুষকে হত্যা করে কী অর্জন করতে চান? ইসলাম শান্তির ধর্ম। ইসলামের নামে মানুষ হত্যা বন্ধ করুন।’ সন্তানরা যেন বিপথে না যায়, সেদিকে নজর রাখতে অভিভাবকদের প্রতিও আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে বলেন, ‘আসুন, আমরা সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে একটি নিরাপদ বাংলাদেশ, জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় একযোগে কাজ করি।’

সন্ত্রাসীদের নির্মূল করে বাংলাদেশকে শান্তিপূর্ণ রাষ্ট্রে পরিণত করার দৃঢ় সংকল্প জানিয়ে তিনি বলেন, ‘কোনো ষড়যন্ত্রই আমাদের অগ্রযাত্রাকে প্রতিহত করতে পারবে না।

কমান্ডো অভিযানে তিন বিদেশিসহ ১৩ জনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধারের তথ্য তুলে ধরে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের কাজের প্রশংসা করেন সরকার প্রধান। হামলা ঠেকাতে গিয়ে নিহত দুই পুলিশ কর্মকর্তার সাহসিকতার প্রশংসাও করেন তিনি। জিম্মি সংকট অভিযানে অংশ নেয়া পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি, সেনাবাহিনী, বিমানবাহিনী, নৌবাহিনী, ফায়ার সার্ভিসসহ অন্যান্য বাহিনীর সদস্যদের ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী।

এই হামলায় নিহতদের মধ্যে ইতালীয় ও জাপানি নাগরিকদের পাশাপাশি একজন ভারতীয় রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে পরিস্থিতি মোকাবেলায় বাংলাদেশের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন।

বিশ্ব সম্প্রদায়ের যেসব নেতা বাংলাদেশের প্রতি একাত্মতা ও সংহতি প্রকাশ করেছেন তাদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ যখন একটি আত্ম-মর্যাদাশীল এবং আত্ম-নির্ভরশীল দেশ হিসাবে বিশ্বের বুকে প্রতিষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, তখন দেশি-বিদেশি একটি চক্র বাংলাদেশের অগ্রযাত্রাকে বানচালের অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে। বাংলাদেশকে অকার্যকর রাষ্ট্র হিসাবে পরিচিত করতেই অস্ত্রের মুখে নিরীহ সাধারণ মানুষকে জিম্মি করা হয়েছিল।

শেখ হাসিনাকে নরেন্দ্র মোদী ও শিনজো অ্যাবের ফোন:

Phone

ঢাকার গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে জিম্মি সংকটের ঘটনায় শনিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফোন করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে। তারা দুইজনই ওই সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা জানান এবং সরকারের গৃহীত তড়িত্ ব্যবস্থার প্রশংসা করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদেরকে ধন্যবাদ জানান এবং জিম্মি উদ্ধারে সরকারের নেয়া ব্যবস্থাগুলো সম্পর্কে অবহিত করেন। প্রধানমন্ত্রী সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে তার সরকারের জিরো টলারেন্সের কথা পুনর্ব্যক্ত করেন। ভারত ও জাপানের প্রধানমন্ত্রীও বাংলাদেশের যেকোনো প্রয়োজনে পাশে থাকার কোথাও পুনর্ব্যক্ত করেন।

ফোনালাপে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, এই ঘটনার তদন্ত থেকে শুরু করে যেকোনো পর্যায়ে সাহায্য করতে ভারত প্রস্তুত রয়েছে।

রেস্টুরেন্টে তল্লাশিকালে ২০ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়, যাদের ধারালো অস্ত্রের মাধ্যমে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে।’

সংশ্লিষ্ট সূত্র নিশ্চিত করেছে, নিহত বিদেশিদের মধ্যে ইতালির নয়জন, জাপানের সাতজন ও ভারতের একজন নাগরিক রয়েছেন। এ ছাড়া নিহতদের মধ্যে তিন বাংলাদেশি নাগরিকও রয়েছেন। তাদের মধ্যে ১০ জন নারী ও ১০ জন পুরুষ।

ইতালির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নিশ্চিত করেছে, ঢাকায় সন্ত্রাসী হামলায় তাদের ৯ জন নাগরিক নিহত হয়েছেন। তাঁরা হলেন মারকো তনদাট, ভিনচেজু ডেলেস্ত্র, মারিয়া রিবলি, নাদিয়া বেনিদেত্তি, আদেয়া পলিজি, ক্লদিও ক্যাপেলি, ক্রিস্তিয়ান রসি, ক্লদিও মারিয়া দানতোনা ও সিমোনা মন্তি।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ জানিয়েছেন, নিহত ভারতীয় তরুণীর নাম তারিশি জৈন। নিহত তিন বাংলাদেশির পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, নিহত তিন বাংলাদেশিরা হলেন – ফারাজ আইয়াজ হোসেন, ইশরাত আখন্দ ও অবিন্তা কবীর। ফারাজ ট্রান্সকম গ্রুপের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমানের নাতি। ইশরাত ঢাকার একটি আর্ট গ্যালারির সাবেক প্রধান এবং অবিন্তা সুপার স্টোর ল্যাভেন্ডারের মালিক মনজুর মোরশেদের নাতনী।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment