বৌদ্ধ মূর্তি ভাংচুরের ঘটনায় জড়িতদের বিচারের দাবীতে মানব বন্ধন

লামা রিপোর্ট –

lama

বৌদ্ধ মূর্তি ভাংচুরের ঘটনায় বান্দরবানের লামায় মঙ্গলবার মানব বন্ধন করেছে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী লোকজন এবং হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ।

লামা উপজেলা পরিষদের সামনের সড়কে  ঘন্টাব্যাপী মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানব বন্ধনে সভাপতিত্ব করেন, ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি অর্পন মহাজন। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, অংগ্য মার্মা, চংপাত ম্রো, মংচাই মার্মা, চিংছাই মার্মা প্রমুখ।

মানব বন্ধনে বক্তারা ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত পূর্বক দোষীদের শাস্তি দাবী করে এলাকার সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তার দাবী জানান।

জানা গেছে, ২ অক্টোবর দিবাগত রাত ২টা ৩০ মিনিটে লামা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের আজিম, জসিম, কালাম, লুৎফর, শাহ আলম ও জাকের হোসেন মজুমদারসহ অজ্ঞাতনামা আরো ২০/৩০ জন বহিরাগত রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী বনপুর বাজারস্থ হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের জায়গায় অনধিকার প্রবেশ করে বৌদ্ধ মুর্তি ভাংচুর করে। ৪ অক্টোবর বিষয়টি জানাজানি হলে, লামা উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, অফিসার ইনচার্জ (ওসি) লামা থানা ও বিভিন্ন গোয়েন্দা সংন্থার লোকজন দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার খালেদ মাহমুদ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে উপস্থিত বৌদ্ধ ধর্মের নেতৃবৃন্দদের সাথে আলাপ আলোচনা করেছেন। পুলিশকে ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে নির্দেশ দিয়েছেন।

লামা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ইকবাল হোসেন বলেন, বিষয়টি জানার সাথে সাথে তিনি দ্রুত ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের বনপুর এলাকার ক্ষতিগ্রস্ত বৌদ্ধ বিহারে যান। ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে এমন কাউকে ছাড় দেয়া হবে না বলে জানান তিনি।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment