প্রেস বিজ্ঞপ্তি

পিসিপি’র আটক নেতা-কর্মীদের মুক্তির দাবিতে কুদুকছড়িতে সমাবেশ

১২ নভেম্বর ২০১৬

প্রেস বিজ্ঞপ্তি –

pcp

পিসিপি’র কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি বিনয়ন চাকমা, সাধারণ সম্পাদক বিপুল চাকমা ও সাংগঠনিক  সম্পাদক অনিল চাকমাসহ রাজনৈতিক কারণে আটক সকল বন্দীদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে রাঙ্গামাটির কুদুকছড়িতে সংহতি সমাবেশ করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) রাঙ্গামাটি জেলা শাখা।

‘দমন-পীড়ন বন্ধ কর, সভা-সমাবেশের গণতান্ত্রিক অধিকার ফিরিয়ে দাও’ এ স্লোগানে আজ শনিবার (১২ নভেম্বর) সকাল ১০টায় বড় মহাপূরম (মাওরুম) উচ্চ বিদ্যালয় গেটের সামনে রাঙ্গামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কের ওপর অনুষ্ঠিত সমাবেশে পিসিপি রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সভাপতি কুনেন্টু চাকমা’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আসেন্টু চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন পিসিপি’র কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক রতন স্মৃতি চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রচার সম্পাদক রুপন মারমা, নান্যাচর ভূমি রক্ষা কমিটির সভাপতি কুমেন্টু চাকমা ও ঘিলাছড়ি নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সাবেক সভাপতি শান্তি প্রভা চাকমা। সমাবেশে সংহতি জানিয়ে আরো বক্তব্য রাখেন নান্যাচর ইউপি চেয়ারম্যান জ্যোতিলাল চাকমা, ঘিলাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান অমর কান্তি চাকমা ও ফটিকছড়ি  ইউপি চেয়ারম্যান ধন কুমার চাকমা। এছাড়া সংহতি জানিয়ে সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন সাবেক্ষ্যং ইউপি চেয়ারম্যান সুশীল জীবন চাকমা, বুড়িঘাট ইউপি চেয়ারম্যান প্রমোদ বিকাশ চাকমা ও ঘাগড়া ইউপি চেয়ারম্যান জগদীশ চাকমা।

সমাবেশে সংহতি জানিয়ে ঘিলাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান অমর কান্তি চাকমা বলেন, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ নিয়মতান্ত্রিভাবে আন্দোলন করছে। কিন্তু সরকার আন্দোলন দমনের জন্য পিসিপি নেতা-কর্মীদের অন্যায়ভাবে গ্রেপ্তার করছে। তিনি আটক পিসিপি নেতা-কর্মীদের মুক্তি দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

নান্যাচর ভুমি রক্ষা কমিটির সভাপতি কুমেন্টু চাকমা বলেন,পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমি রক্ষার আন্দোলন করে যাচ্ছে। সরকার একদিকে ভূমি কমিশনের আইন সংশোধনের মাধ্যমে দরখাস্ত আহ্বান করছে, অপরদিকে আন্দোলনে যুক্ত নেতা-কর্মীদের ধরপাকড় চালাচ্ছে। তিনি অন্যায় ধরপাকড় বন্ধের দাবি করেন।

ফটিকছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান ধনকুমার চাকমা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে আমরা যুগ যুগ ধরে নিপীড়িত-নির্যাতিত হয়ে আসছি। সরকারের অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে হবে। জাতি ও ভূমি রক্ষার আন্দোলন জোরদার করতে হবে। যে জাতি প্রতিবাদ করতে জানে, সে জাতি বাঁচতেও জানে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

সমাবেশে অন্যান্য বক্তারা বলেন, সরকার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ১১ নির্দেশনা জারির মাধ্যমে পার্বত্য চট্টগ্রামে গণতান্ত্রিক অধিকারকে রুদ্ধ করে রেখেছে। অন্যায়ভাবে পিসিপিসহ সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার-হয়রানি করা হচ্ছে। পিসিপি’র কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক বিপুল চাকমাকে গেপ্তার করে তার অসুস্থ মাকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে। সংবাদ সম্মেলন থেকে বিনয়ন চাকমা ও অনিল চাকমাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সমাবেশ থেকে বক্তারা অবিলম্বে পিসিপি’র কেন্দ্রীয় সহসভাপতি বিনয়ন চাকমা, সাধারণ সম্পাদক বিপুল চাকমা ও সাংগঠনিক সম্পাদক অনিল চাকমাসহ রাজনৈতিক কারণে আটক সকল বন্দীদের নিঃশর্ত মুক্তি, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দমনমূলক ১১ নির্দেশনা বাতিল ও অন্যায় ধরপাকড়-দমন পীড়ন বন্ধ করে গণতান্ত্রিক অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার জোর দাবি জানান।

বার্তা প্রেরক –
বিপ্লব চাকমা
দপ্তর সম্পাদক
পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ
রাঙ্গামাটি জেলা শাখা।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment