দীপংকর তালুকদারকে রাঙ্গামাটির লংগদু উপজেলায় গণসংবর্ধনা

শামসুল আলম, রাঙ্গামাটি:

dt

বাংলাদেশের নিয়মতান্ত্রিক ও গণতান্ত্রিক রাজনীতি ত্যাগ করে পাহাড়ের আঞ্চলিক দলগুলো যদি অবৈধ অস্ত্র দিয়ে তাদের দাবী দাওয়া আদায় করতে চাই সেক্ষেত্রে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা কখনো বরদাস্ত করবে না বলে হুুঁশিয়ার করে দিয়েছেন সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য দীপংকর তালুকদার। তিনি বলেন, অধিকার আদায়ের নামে অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার করে কতিপয় আঞ্চলিক সংগঠন পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষকে জিম্মি করে রেখেছে। এই জিম্মিদশা থেকে রেহাই পেতে পাহাড়ী বাঙ্গালী সকল সম্প্রদায়কে প্রশাসনের পাশাপাশি ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসতে হবে।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) সকালে রাঙ্গামাটির লংগদু উপজেলায় দীপংকর তালুকদারকে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য করায় লংগদু উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল বারেক সরকারের সভাপতিত্বে উপজেলা পরিষদ মাঠে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনায় আরো বক্তব্য রাখেন, মহিলা সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা, জেলা মহিলা লীগের সহ-সভাপতি ঝর্ণা খীসা, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাজি কামাল উদ্দিন, জেলা কৃষক লীগ সভাপতি জাহিদ আক্তার, জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক শামসুল ইসলাম, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নূর মোহাম্মদ কাজল, লংগদু উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য মো: জানে আলম, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল জব্বার সুজন’সহ লংগদু উপজেলার নেতৃবৃন্দ।

সভায় দীপংকর তালুকদার আরো বলেন, বর্তমান সরকার পাহাড়ের মানুষের শান্তির জন্য শান্তি চুক্তি করেছে। ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি করার জন্য ভুমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন করেছে। কিন্তু এই অবৈধ অস্ত্রের কারণে এগুলো বিলম্ব হতে বাধ্য হচ্ছে। পাহাড়ের মানুষের জীবন যাপন যদি স্বাভাবিক অবস্থা না হয় তাহলে এই শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন ও ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কখনোই  সম্ভব নয়।  এদের বিরুদ্ধে সকলকে রুখে দাড়াতে হবে।

সভায় সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু বলেন, পাহাড়ে যারা অবৈধ অস্ত্রধারীদের সহযোগিতা করে তাদেরকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করতে হবে। তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু এ দেশকে একটি সোনার বাংলাদেশে রূপান্তরিত করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু স্বাধীনতা বিরোধীরা তাকে হত্যা করে বাংলাদেশকে আবার পাকিস্তান রাষ্ট্রে পরিণত করতে চক্রান্ত চালিয়েছিলো। তার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে দেশ উন্নত ও সমৃদ্ধশালী হচ্ছে। এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আগামী নির্বাচনে তিনি সকল সম্প্রদায়ের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নৌকা প্রতীকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান।

সভায় রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেন, বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এই পার্বত্য অঞ্চলের মানুষকে ভালোবাসেন বিধায় জননেতা দীপংকর তালুকদারকে কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নির্বাচিত করেছে। তিনি বোঝেন এই পাহাড়ের মানুষের কল্যাণে একমাত্র অভিভাবক হিসেবে দীপংকরই নিতৃত্ব দিতে পারবে। তাই আগামী ২০১৯ সালের নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে রাঙ্গামাটির আসনটি নেত্রীকে উপহার হিসেবে দিতে আমাদের সকলকে কাজ করতে হবে।

পরে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিএনপি’র শতাধিক নেতাকর্মী দীপংকর তালুকদারের হাতে ফুল দিয়ে আওয়ামী লীগে যোগদান করেন।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment