ইসি গঠন নিয়ে ১৮ ডিসেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে রাষ্ট্রপতির সংলাপ

অনলাইন ডেস্ক –

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠন নিয়ে বিএনপিসহ পাঁচটি রাজনৈতিক দলকে আলোচনার জন্য বঙ্গ ভবনে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। সংসদের বাইরে থাকা বিএনপির সঙ্গে আলোচনার মধ‌্য দিয়ে আগামী ১৮ ডিসেম্বর শুরু হচ্ছে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে রাষ্ট্রপতির সংলাপ।

সোমবার বিকালে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন জানান, ১৮ ডিসেম্বর বিকাল সাড়ে চারটায় বিএনপি, ২০ ডিসেম্বর সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টি (জাপা), ২১ ডিসেম্বর লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি) ও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ ও ২২ ডিসেম্বর জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলকে (জাসদ) ডেকেছেন রাষ্ট্রপতি। বাকি নিবন্ধিত দলগুলোকে পর্যায়ক্রমে আলোচনার জন্য আমন্ত্রণ জানাবেন রাষ্ট্রপতি।

১৮ নভেম্বর এক অনুষ্ঠানে নির্বাচন কমিশন গঠন ও নির্বাচন সুষ্ঠু করার লক্ষ্যে ১৩ দফা প্রস্তাব উপস্থাপন করেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। প্রস্তাবে তিনি সব দলের সঙ্গে আলোচনা ও ঐকমত্যের ভিত্তিতে সর্বজনশ্রদ্ধেয় বিতর্কমুক্ত ব্যক্তিদের নিয়ে একটি নির্বাচন কমিশন গঠনের সুপারিশ করেন। আওয়ামী লীগ ওই দিনই বিএনপির প্রস্তাবটি প্রত্যাখ্যান করে। আর প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টি (জাপা) বলেছে, সংসদের বাইরে থাকা কোনো দলকে এই সংলাপে ডাকার প্রয়োজন তারা দেখছে না। গত ৬ ডিসেম্বর বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল খালেদা জিয়ার ওই প্রস্তাব বঙ্গ ভবনে পৌঁছে দেন।

সংবিধান অনুযায়ী, নির্বাচন কমিশন গঠন করার এখতিয়ার রাষ্ট্রপতির। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে পরামর্শক্রমে তিনি নির্বাচন কমিশনারদের নিয়োগ দিতে পারেন। ২০১২ সালে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা করেই ‘সার্চ কমিটির’ মাধ্যমে কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ নেতৃত্বাধীন বর্তমান নির্বাচন কমিশন গঠন করে দিয়েছিলেন তত্কালীন রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান। আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে বর্তমান কমিশনের মেয়াদ শেষে নতুন যে ইসি দায়িত্ব নেবে, তার অধীনেই ২০১৯ সালে একাদশ সংসদ নির্বাচন হবে।

বিএনপি নেত্রীর প্রস্তাব সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্প্রতি বলেছেন, ‘উনার প্রস্তাব উনি দিয়েছেন। রাষ্ট্রপতিকে বলুক, এটা রাষ্ট্রপতি ভালো বুঝবেন, উনি কী পদক্ষেপ নেবেন। রাষ্ট্রপতি যে পদক্ষেপ নেবেন সেটাই হবে, এখানে আমাদের বলার কিছু নেই।’

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment