কল্পনার অপহরণকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে রাঙ্গামাটির কুদুকছড়িতে বিক্ষোভ

৯ জানুয়ারি ২০১৭

প্রেস বিজ্ঞপ্তি –

“শুনানীর নামে অপহরণকারীদের রক্ষার ষড়যন্ত্র পার্বত্যবাসী মেনে নেবে না” এই স্লোগানে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের নেত্রী কল্পনা চাকমা’র চিহ্নিত অপহরণকারী তৎকালীন লে: ফেরদৌস, পিসি সালেহ আহম্মেদ ও ভিডিপি সদস্য নুরুল হকের গ্রেফতারের দাবিতে রাঙ্গামটির কুদুকছড়িতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে পার্বত্য চট্টগ্রামের চার নারী সংগঠন হিল উইমেন্স ফেডারেশন, পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সংঘ, ঘিলাছড়ি নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি ও সাজেক নারী সমাজ।

আজ সোমবার (৯ জানুয়ারি) সকাল ১১ টায় কুদুকছড়ি বড় মাওরুম (মহাপূরম) উচ্চ বিদ্যালয় গেট থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি কুদুকছড়ি বাজার প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় একই স্থানে এসে এক প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়।

ঘিলাছড়ি নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সাবেক সভাপতি শান্তি প্রভা চাকমার সভাপতিত্বে ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সদস্য দয়া সোনা চাকমার সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সদস্য মন্টি চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সংঘের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কাজলী ত্রিপুরা, সাজেক নারী সমাজের সভাপতি নিরূপা চাকমা, ঘিলাছড়ি ইউপি মহিলা মেম্বার সান্তনা চাকমা, রামহরি পাড়ার মহিলা কার্বারী সান্তনা চাকমা।

বক্তারা বলেন, ১৯৯৬ সালের ১২ জুন কল্পনা চাকমাকে কজইছড়ি ক্যাম্পের তৎকালীন লে: ফেরদৌস, পিসি সালেহ আহমেদ এবং ভিডিপি নুরুল হকের নেতৃত্বে বাঘাইছড়ির নিউ লাল্যাঘানার নিজ বাড়ী থেকে অপহরণ করা হয়। অপহরণের ২১ বছর অতিবাহিত হওয়ার পরও অদ্যাবধি কল্পনা চাকমা‘র অপহরণের সঠিক তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ ও অপরাধীদের গ্রেফতার করা হয়নি। এ পর্যন্ত দাখিলকৃত প্রতিটি তদন্ত রিপোর্টে অপহরণকারীদের রক্ষায় সকল রকম চেষ্টা চালানো হয়েছে।

বক্তারা বারবার শুনানীর নামে সরকার অপরাধীদের রক্ষার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে উল্লেখ করে বলেন, রাঙ্গামাটি পুলিশ সুপারের দাখিলকৃত চূড়ান্ত তদন্ত রিপোর্টের উপর আগামী ১০ জানুয়ারি আবারো শুনানী অনুষ্ঠিত হবে। এই শুনানীর মাধ্যমে কল্পনা চাকমা অপহরণ ঘটনার প্রত্যক্ষ সাক্ষী ও মামলার বাদী কালিন্দী কুমার চাকমার সাক্ষ্যের ভিত্তিতে চিহ্নিত অপহরণকারী লে. ফেরদৌস, সালেহ আহমেদ ও নুরুল হকসহ জড়িতদের গ্রেফতার ও শাস্তিমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। শুনানী অনুষ্ঠানের নামে যদি আবারো অপরাধীদের বাঁচানোর ষড়যন্ত্র করা হয় তাহলে পার্বত্যবাসী তা কখনো মেনে নেবে না বলে বক্তারা হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন।

বার্তা প্রেরক –
বিমান্তি চাকমা
দপ্তর সম্পাদক
হিল উইমেন্স ফেডারেশন
রাঙ্গামাটি জেলা শাখা।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment