ন্যায় বিচারের দাবিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নিকট চিঠি প্রেরণ

পার্বত্য চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক কমিশন

২৪ এপ্রিল ২০১৭

পার্বত্য চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক কমিশন গভীর উদ্বেগের সাথে জানাচ্ছে যে, গত ৬ এপ্রিল ২০১৭ তারিখে রাঙ্গামাটির নানিয়াচর উপজেলা থেকে এইচএসসি পরীক্ষার্থী রমেল চাকমাকে আটক করা হয়েছে বলে সংবাদপত্রের সূত্রে জানা যায়। অভিযোগ রয়েছে যে, আটকের পরে তার ওপর নির্মমভাবে শারীরিক নির্যাতন চালানো হয়। আরো অভিযোগ যে, নির্যাতনের পরে অসুস্থ রমেল চাকমাকে স্থানীয় থানায় হস্তান্তর করতে চাইলে পুলিশও তাকে গ্রহণ করেনি। এমনকি স্থানীয় উপজেলা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও তাকে সেখানে ভর্তি না করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে প্রেরণের পরামর্শ প্রদান করে। অবশেষে রমেল চাকমা পুলিশী পাহারায় চট্টগ্রাম মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১৯ এপ্রিল ২০১৭ তারিখ দুপুরে মারা যান।

রমেল চাকমাকে আটকের পরে নির্মমভাবে নির্যাতন করায় এবং নির্যাতনে তার মৃত্যু হওয়ায় পার্বত্য চট্টগ্রাম কমিশন গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছে। অধিকতর উদ্বেগের বিষয় এই যে, আটকাবস্থায় রমেল চাকমার ওপর নির্যাতন ও পরবর্তীতে মৃত্যুর সংবাদ প্রকাশের প্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিজেদের দায় অস্বীকার করে একে অন্যের ওপর দায় চাপিয়ে দেয়া হচ্ছে। একটা স্বাধীন রাষ্ট্রে বিনাবিচারে একদিকে এভাবে একজন শিক্ষার্থীর জীবন অকালে কেড়ে নেয়া ও অন্যদিকে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর উল্লেখিত আচরণ কোনভাবে গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। তাই পার্বত্য চট্টগ্রাম কমিশন রমেল চাকমার হত্যার তদন্তের জন্য অনতিবিলম্বে একটি উচ্চ পর্যায়ের নিরপেক্ষ বিচারিক তদন্ত কমিটি গঠনের জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে জোর দাবি জানায় এবং এ ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় এনে বিচারের মুখোমুখি করারও আহবান জানায়। একইসাথে রমেল চাকমার প্রাণহানির জন্য তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের জন্য মানসম্পন্ন ও পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণ নিশ্চয়তার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানানো হয়।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment