রাঙ্গামাটিতে পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ

প্রেস বিজ্ঞপ্তি –

পাহাড়ে উপজাতি সন্ত্রাসী কর্তৃক খুন, অপহরণ, চাঁদাবাজি বন্ধ ও ছাদেকুল হত্যার দাবীতে রাঙ্গামাটিতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদ। বৃহষ্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় সংগঠনটির উদ্যোগে রাঙ্গামাটি পৌরসভা চত্বর থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে মিলিত হয়।

পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদের রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মো: জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন পার্বত্য নাগরিক পরিষদের আহবায়ক বেগম নূর জাহান, পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদ রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান, সহ-সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মো: নূর শফিউল্লাহ্, যুগ্ম সম্পাদক মো: নাজিম, কলেজ শাখার আহ্বায়ক ফয়জুল্লাহ মোরশেদ প্রমুখ।

সমাবেশে পার্বত্য  নাগরিক পরিষদ রাঙ্গামাটি জেলা শাখার  আহ্বায়ক  বেগম নূর জাহান বলেন, নামধারী একটি মহল পার্বত্যাঞ্চলকে অশান্ত করার চেষ্টা করছে। এছাড়া দেশি-বিদেশী ষড়যন্ত্রকারীদের সেনাবাহিনীর ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে একটি মহল উঠে পড়ে লেগেছে। বহুদিন যাবৎ পার্বত্যাঞ্চলে নামধারী কতিপয় উপজাতীয় আঞ্চলিক সংগঠনগুলো বাঙালিদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে রেখেছে। তাদের অবৈধ অস্ত্রের মুখে পাহাড়ের মানুষ আজ নিরাপত্তাহীন।

অন্যান্য বক্তারা আরও বলেন, পার্বত্যাঞ্চলে উপজাতি সশস্ত্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ঘুম, খুন, চাঁদাবাজি, অপহরণ অব্যাহত রেখেছে। স্বাধীনতার পর থেকে বিভিন্ন সময় এই পর্যন্ত প্রায় ৪০ (চল্লিশ) হাজার সাধারণ বাঙালিকে হত্যা করেছে এই উপজাতী সন্ত্রাসী সংগঠনগুলো। এখন নতুন করে আবার বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র শুরু করেছে।

তাদের এই ষড়যন্ত্রকে প্রতিহত করার জন্য বাঙালি সম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান। সেই সাথে সাদেকুল সহ পাহাড়ে সকল বাঙালি হত্যার বিচার পূর্বক নিরাপত্তা বৃদ্ধির লক্ষে অধিক হারে সেনা ক্যাম্প স্থাপনের জোর দাবি জানান বক্তারা।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment