হাজী আব্দুল বারী মাতব্বরের মৃত্যু বার্ষিকী ও শহীদ আব্দুল আলী স্মৃতি বৃত্তি প্রদান

রাঙ্গামাটি রিপোর্ট –

রাঙ্গামাটির ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শহীদ আব্দুল আলী একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা হাজী আব্দুল বারী মাতব্বরের ২৮তম মৃত্যু বার্ষিকী ও হাজী আব্দুল বারী মাতব্বর এবং শহীদ এম. আব্দুল আলী স্মৃতি বৃত্তি – ২০১৭ প্রদান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১১ মে) সকালে বিদ্যালয়ে বিনামূল্যে চিকিৎসা ও ঔষুধ প্রদান, রক্তের গ্রুপ নির্ণয় এবং আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য হাজী মো: মুছা মাতব্বরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বিশেষ অতিথি দৈনিক গিরিদর্পণ পত্রিকার সম্পাদক প্রকাশক একেএম মকছুদ আহমেদ, রাণী দয়াময়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রণতোষ মল্লিক, পৌর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম, বিদ্যালয় পরিচালানা কমিটির সাবেক সদস্য  ও শহীদ আব্দুল আলী একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা হাজী আব্দুল বারী মাতব্বরের ছেলে হারুন মাতব্বর, তৈয়বিয়া আইডিয়াল স্কুলের অধ্যক্ষ আকবর হোসেন চৌধুরী, বিদ্যালয় পরিচালানা কমিটির সাবেক সহ-সভাপতি মমতাজুল হক, সদস্য মো: খালেদ ও শাওয়াল উদ্দিন প্রমূখ। স্বাগত বক্তব্য দেন শহীদ আব্দুল আলী একাডেমি এন্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন, সমাজের পিছিয়ে পরা জনগোষ্ঠীদের এগিয়ে নেওয়ার জন্য হাজী আব্দুল বারী এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি করে গেছেন। তার সততা, দৃঢ়তা, দূরদর্শিতা এবং চিন্তা চেতনা ছিল একটি শিক্ষিত জাতি গঠন করা।  তিনি উপলব্ধি করতে পেরেছেন এই জাতিকে শিক্ষিত করতে পারলে সমাজ তথা দেশের উন্নতি সাধন হবে এবং তিনি তাই করে গেছেন। চেয়ারম্যান বলেন, এই প্রতিষ্ঠানটি যতদিন থাকবে এই মহান ব্যক্তিকে সবাই শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে।

চেয়ারম্যান শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমরাই আমাদের আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। আগামীতে তোমরাই এই দেশ পরিচালনা করবে। এখন থেকেই দেশের সেবা করার লক্ষ্যে তোমাদের মনোযোগ দিয়ে পড়ালেখা করে নিজেকে যোগ্য করে তুলতে হবে। মনে রাখবে শিক্ষিত জাতি দেশের সম্পদ। তিনি বলেন, শিক্ষার পাশাপাশি আমাদের দেশ ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক দিক দিয়ে এখন বিশ্বে অনেক পরিচিতি লাভ করেছে, তাই তোমরা শিক্ষার পাশাপাশি ক্রীড়া ও সংস্কৃতিকেও গুরুত্ব দেবে এবং চর্চা করবে।

পরে চেয়ারম্যান পরিষদ হতে হাজী আব্দুল বারী মাতব্বর এবং শহীদ এম. আব্দুল আলী স্মৃতি বৃত্তি ফাউন্ডেশনে ৫ লক্ষ টাকার চেক ও এ বছরে এসএসসিতে জিপিএ – ৫ প্রাপ্ত এক শিক্ষার্থীকে নগদ ১০হাজার টাকা প্রদান করেন। শেষে অতিথিরা অন্যান্য বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের হাতে বৃত্তি ও সনদপত্র বিতরণ করেন।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment