১০ ফেব্রুয়ারি রাঙ্গামাটিতে সকাল-সন্ধ্যা সড়ক ও নৌপথ অবরোধ

৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

প্রেস বিজ্ঞপ্তি –

রাঙ্গামাটি জেলার বিলাইছড়িতে মারমা সম্প্রদায়ের দুই বোনকে ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের ডাক্তারি পরীক্ষার রিপোর্ট প্রকাশপূর্বক ধর্ষক সেনা জওয়ানদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিসহ ৬ দফা দাবিতে আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, শনিবার রাঙ্গামাটি জেলায় সকাল-সন্ধ্যা সড়ক ও নৌপথ অবরোধ কর্মসূচি সফল করার আহ্বান জানিয়েছে হিল উইমেন্স ফেডারেশন।

সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি নিরূপা চাকমা ও সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা আজ বৃহস্পিতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সংবাদ মাধ্যমে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে এই আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, গত ৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় হিল উইমেন্স ফেডারেশন, সিপিবি নারী সেল ও সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের যৌথ সংবাদ সম্মেলন থেকে হিল উইমেন্স ফেডারেশন এই অবরোধ এ কর্মসূচির ঘোষণা দেয়।

সংবাদ সম্মেলনে উত্থাপিত অন্যান্য দাবিগুলো হচ্ছে- ধর্ষিতা কিশোরী দুই বোনকে সামাজিকভাবে পুনর্বাসনের উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া; ধর্ষিতা কিশোরীর অভিভাবকদের ওপর থেকে নজরদারি ও চলাফেরার নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে তাদের বন্দীদশা থেকে মুক্ত করে স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে দেয়া; সাম্প্রদায়িক মনোভাবাপন্ন রাঙ্গামাটির বর্তমান জেলা প্রশাসককে প্রত্যাহার করে একজন যোগ্য প্রশাসক সেখানে নিয়োগ; সামরিক-বেসামরিক প্রশাসন ও পুলিশ সংস্থায় সাম্প্রদায়িক মনোভাবাপন্ন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পার্বত্য চট্টগ্রামে নিয়োগের ব্যাপারে আরও সর্তকতা অবলম্বন করা এবং ফারুয়া সেনা ক্যাম্প-এ দায়িত্বপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তাসহ ২১ জানুয়ারি অরাছড়ি পাড়ায় অভিযান চালানো সেনা জওয়ানদের প্রত্যাহার করা।

সংবাদ মাধ্যমে দেওয়া বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ রাঙ্গামাটি শহর এলাকা অবরোধ আওতামুক্ত থাকবে বলে জানিয়েছেন। এছাড়া এ্যাম্বুলেন্স ও রোগী বহনকারী গাড়ি, ফায়ার সার্ভিস, জরুরী বিদ্যুৎ সরবরাহ এবং সংবাদপত্র-সাংবাদিক বহনকারী গাড়ি অবরোধের আওতামুক্ত থাকবে বলেও বিবৃতিতে জানানো হয়।
বার্তা প্রেরক –
নীতি শোভা চাকমা
দপ্তর সম্পাদক
হিল উইমেন্স ফেডারেশন
কেন্দ্রীয় কমিটি।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment