শিল্পকলা একাডেমির ৪৪ বছর পূর্তি উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা

রাঙ্গামাটি রিপোর্ট –

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেছেন, বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্যবাহী শিল্প-সংস্কৃতির বিকাশ, চর্চা এবং সংরক্ষণের স্বপ্ন নিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান ‘বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি’ ১৯৭৪ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি বাংলাদেশের শিল্প সংস্কৃতি বিকাশের একমাত্র জাতীয় প্রতিষ্ঠান এবং প্রতিভাবান শিল্পী তৈরির অপার সম্ভবনার একটি ক্ষেত্র। এখান থেকেই গুণী শিল্পীরা উঠে এসেছে।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সকালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির ৪৪ বছর পূর্তি ও বসন্ত বরণ উপলক্ষে রাঙ্গামাটি জেলা শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন।

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য ও জেলা শিল্পকলা একাডেমির আহ্বায়ক মনোয়ারা আক্তার জাহান এর সভাপতিত্বে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুমনী আক্তার, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সহ-সভাপতি প্রবীন সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে, জেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক (ভা:) রূপনা চাকমা, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক মুজিবুল হক বুলবুল বক্তব্য দেন। স্বাগত বক্তব্য দেন জেলা শিল্পকলা একাডেমির কালচারাল অফিসার অনুসিনথিয়া চাকমা। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জেলা শিল্পকলা একাডেমির সঙ্গীত শিক্ষক মিলন ধর।

আলোচনা সভায় রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেন, বর্তমান সরকার পার্বত্যবাসীর প্রতি খুবই আন্তরিক। তাই এখানকার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীদের সংস্কৃতি চর্চা ও রক্ষায় শিল্পকলার পাশাপাশি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইন্সটিটিউটের মাধ্যমে নৃত্য, নাট্য, সঙ্গীত, সাহিত্যসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ ও অনুষ্ঠান আয়োজন করে চলেছে। তিনি বলেন, এখানকার নৃ-গোষ্ঠীর শিশুরা যাতে শিশুকাল থেকেই তাদের স্ব-স্ব ভাষায় শিক্ষা গ্রহণ করতে পারে সরকার সেলক্ষ্যে তাদের নিজস্ব ভাষায় পাঠ্য বই শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করছে। তিনি আরো বলেন, একটি জাতির পরিচয় তার ভাষা ও সংস্কৃতি। সুস্থ সংস্কৃতির চর্চা ও বিকাশে সরকারের পাশাপাশি সাংষ্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও অভিভাবকদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

এর আগে শিল্পকলা একাডেমি ৪৪ বছর পূর্তি ও বসন্ত বরণ উপলক্ষে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ হতে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি জেলা বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন পয়েন্ট প্রদক্ষিণ করে জেলা শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গনে এসে শেষ হয়ে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। র‌্যালিতে সামাজিক সাংস্কৃতিক ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভা শেষে কেক কেটে বর্ষপূর্তি পালন করা হয়। পরে জেলা শিল্পকলা একাডেমির সঙ্গীত ও নৃত্য শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment