আজ মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস

অনলাইন ডেস্ক –

আজ ২১ ফেব্রুয়ারি বেদনাবিধুর ও গৌরবের একুশে ফেব্রুয়ারি। মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক সংস্থা ইউনেস্কোর ৩০তম সম্মেলনে ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর ২৮টি দেশের সমর্থনে ফেব্রুয়ারির এ দিনটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের স্বীকৃতি পায়। ২০০০ সাল থেকে বিশ্বের ১৮৮টি দেশে একযোগে এ দিবস পালিত হচ্ছে। এ আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি বাঙালি জাতি ও বাংলাদেশের জন্য এক অনন্য অর্জন।

তবে বিশ্বব্যাপী একুশে ফেব্রুয়ারি স্বীকৃতি পেলেও এখনও দিবসটির ইতিহাস ও তাৎপর্য যথাযথভাবে প্রচারিত নয়, বাংলাদেশেও এর অম্লান চেতনা সর্বস্তরে ছড়িয়ে দেওয়া সম্ভব হয়নি। রাষ্ট্রভাষা হিসেবে দেশের সংবিধানে বাংলার স্বীকৃতি থাকলেও সর্বস্তরে তা চালুর দাবি বাস্তবায়ন হয়নি।

আজ সরকারি ছুটির দিন। সারাদেশে আজ দিনের শুরু হয়েছে শহীদ মিনারে পুষ্পাঞ্জলি নিবেদনের মধ্য দিয়ে। বিশ্বের দেশে দেশে নানা ভাষা, নানা বর্ণ, নানা সংস্কৃতির মানুষ আজ গাইছে একুশের অমর গান- ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো…’।

মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাণী দিয়েছেন। এসব বাণীতে তারা ভাষার জন্য আত্মোৎসর্গকারী বীর শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। একইসঙ্গে ভাষা আন্দোলনের চেতনায় শহীদদের স্বপ্ন পূরণে দেশ ও জাতির কল্যাণে এগিয়ে আসার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান রেখেছেন। বিরোধী দলের নেতা বেগম রওশন এরশাদও পৃথক বাণী দিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ একুশের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর পরপরই শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

অমর একুশে পালন নিরাপদ রাখতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, আজিমপুর কবরস্থানসহ একুশের প্রভাতফেরি প্রদক্ষিণের এলাকায় বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। প্রণয়ন করা হয়েছে শহীদ মিনারে প্রবেশের রোডম্যাপ। গতকাল মঙ্গলবার রাত ৮টা থেকে এটি কার্যকর হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যার পর থেকে আজ বুধবার দুপুর পর্যন্ত শহীদ মিনার ও এর আশপাশের এলাকায় সর্বসাধারণের চলাচলের সুবিধার্থে যানবাহন চলাচলেও নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়েছে। শুধু সুনির্দিষ্ট স্টিকার-সংবলিত যানবাহন ওই এলাকায় প্রবেশ করতে পারবে। তবে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সর্বসাধারণের জন্য শহীদ মিনার উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে।

কর্মসূচি :দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও রাজনৈতিক দল কর্মসূচি নিয়েছে। এ উপলক্ষে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে চার দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। আজ বেলা সাড়ে ৩টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করবেন।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে একুশের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়। এ ছাড়া দেশের সব দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ ও কালো পতাকা উত্তোলন এবং সকাল ৭টায় কালো ব্যাজ ধারণ ও প্রভাতফেরি নিয়ে আজিমপুর কবরস্থানে ভাষা শহীদদের কবরে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ ও শ্রদ্ধা নিবেদনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া ২৪ ফেব্রুয়ারি বেলা ৩টায় কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে দলের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসব কর্মসূচি যথাযথভাবে পালনের জন্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের নেতাকর্মী ও সহযোগী সংগঠনগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

রাঙ্গামাটিতেও ১২টা এক মিনিটে সহ-সভাপতি চিংকিউ রোয়াজার নেতৃত্ব সহযোগী সংগঠনসহ জেলা আওয়ামী লীগ কর্তৃক দলীয় কার্যালয় থেকে প্রভাত ফেরি করতে করতে শহীদ মিনারে ফুলের তোড়া অর্পণের মাধ্যমে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধ জানানো হয়। বিকাল ৪টায় দলীয় কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করবেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য দীপংকর তালুকদার।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment