খাগড়াছড়ির বিভিন্ন স্থানে দালাল-প্রতিক্রিয়াশীলদের কুশপুত্তলিকা দাহ

১২ এপ্রিল ২০১৮

প্রেস বিজ্ঞপ্তি –

খাগড়াছড়িতে পার্বত্য চট্টগ্রামের দালাল-প্রতিক্রিয়াশীল সেনাসৃষ্ট নব্য মুখোশ বাহিনীর সর্দার তপন জ্যোতি চাকমা (বর্মা) ও মুখোশ সন্ত্রাসীদের অন্যতম মদদদাতা-সেনা দালাল জেএসএস সংস্কারপন্থী নেতা তাতিন্দ্র লাল চাকমা (পেলে)-এর কুশপুত্তলিকা দাহ করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) খাগড়াছড়ি জেলা শাখা।

পাহাড়ি জাতিসত্তাসমূহের প্রধান উৎসব বিজু উপলক্ষে আজ ১২ এপ্রিল ২০১৮, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৭টায় খাগড়াছড়ি জেলা সদরের উত্তর খবংপুয্যাস্থ চেঙ্গী নদীতে ফুল ভাসানোর সাথে সাথে শত শত পাহাড়ি শিশু-কিশোর, নর-নারীর উপস্থিতিতে এই কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়।

এসময় উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্য সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন পিসিপি খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অমল ত্রিপুরা। এসময় পিসিপি খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি তপন চাকমা ও পিসিপি নেতা-কর্মীরা উপস্থিতি ছিলেন ।

তিনি বলেন, আজ থেকে পার্বত্য চট্টগ্রামে এমন এক পরিস্থিতিতে পাহাড়ি জাতিসত্তাসমূহের প্রধান উৎসব বিজু, সাংগ্রাই, বৈসুক শুরু হচ্ছে যেখানে পাহাড়ি জনগণ উৎসবমুখর হয়ে বিজু পালন করার মত উপযোগী পরিবেশ নেই। লংগদুতে সেটলার হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত পাহাড়ি জনগণ ঘর-বাড়ি ফিরে পাইনি। তারা এবারের বিজু উৎসব বর্জন করেছে। সেনাবাহিনীর মদদে অপহৃত হিল উইমেন্স ফেডারেশনে কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা ও রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক দয়াসোনা চাকমা এখনো উদ্ধার হয়নি। এছাড়াও বিলাইছড়িতে সেনা সদস্য কর্তৃক দুই মারমা তরুণীকে ধর্ষণ ও চাকমা রাণীর উপর হামলার বিচার করেনি এই রাষ্ট্র। এ অবস্থায় আনন্দঘন পরিবেশে উৎসব করা যায় না।

তিনি আরো বলেন, সরকার শাসকগোষ্ঠী পার্বত্য চট্টগ্রামে জনগণের ন্যায্য আন্দোলন দমন করতে একের পর এক ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। আর নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য শাসকচক্রের সাথে আঁতাত করে বর্মা-তরু-পেলে-সুদর্শন-শক্তিমানসহ কতিপয় পাহাড়ি দালাল-প্রতিক্রিয়াশীল প্রতিনিয়ত খুন, গুম, অপহরণসহ নানা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে। এসব দালাল-প্রতিক্রিয়াশীলদের প্রতিহত করতে হবে।

তিনি বিজু’র মাধ্যেমে সকল ধরনের বিভেদ বৈষম্য ভুলে ঐক্য-ভ্রাতৃত্ব বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে জাতির অস্তিত্ব রক্ষার আন্দোলনকে জোরদার করার জন্য জাতি-সম্প্রদায়-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

এছাড়াও জেলা মানিকছড়ি, রামগড়, লক্ষীছড়ি ও দীঘিনালা উপজেলা এলাকাবাসীর উদ্যোগে দালাল-প্রতিক্রিয়াশীল সংস্কারপন্থী তাতিন্দ্র লাল চাকমা (পেলে), শক্তিমান ও নব্য মুখোশ তপন জ্যোতি চাকমার (বর্মা) কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়।

বার্তা প্রেরক,

(সমর চাকমা)

দপ্তর সম্পাদক

পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ

খাগড়াছড়ি জেলা শাখা।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment