রামগড়ে সম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে তিন সংগঠনের বিক্ষোভ

৩০ এপ্রিল ২০১৮
প্রেস বিজ্ঞপ্তি –


সাম্প্রদায়িক হামলা বন্ধ রামগড় লালছড়ি সাধু পাড়ায় সেটলার বাঙালি কর্তৃক পাহাড়ি গ্রামে হামলা-ভাঙচুর-তল্লাশি এব ব্যক্তিকে ধরে নেওয়ার প্রতিবাদে ও সাম্প্রদায়িক হামলাকারীদের গ্রেফতার এবং বিচারের দাবিতে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি), গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম (ডিওয়াইএফ) ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন (এইচডব্লিউএফ) খাগড়াছড়ি জেলা শাখা।

মিছিলটি আজ সোমবার (৩০ এপ্রিল ২০১৮) বিকাল ৪ টায় খাগড়াছড়ি জেলা শহর স্বনির্ভর বাজার ইউনাইটেড পিপল্স ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)-এর কার্যালয়ের সামনে থেকে শুরু করে নারাঙহিয়া রেড স্কোয়ার হয়ে উপজেলা কার্যালয় প্রদক্ষিণ করে আবার একই স্থানে এসে সংক্ষিপ্ত এক প্রতিবাদ সমাবেশের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ডিওয়াইএফ-এর খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রতন স্মৃতি চাকমা।

তিনি বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে ক্ষুদ্র ক্ষদ্র জাতিসত্তা জনগণ কোথাও নিরাপদ নয়। দেশের একটি সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীকে দিয়ে গুম-খুন-অপহরণ, বাড়ী ঘরে অগ্নিসংযোগ-লুটপাটের মত ঘটনা অহরহ ঘটছে। সে সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীদের মদদ দিয়ে যাচ্ছে সরকারে একটি বিশেষ মহল।

তিনি আরো বলেন, কয়েকদিন আগে খাগড়াছড়িসহ তিন পার্বত্য জেলায় বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির জন্য নানানভাবে ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে রাষ্ট্রীয় একটি বিশেষ মহল। তাদের লক্ষ্য ছিল সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি করে পাহাড়িদের ভূমি বেদখল করা সামরিক-বেসামরিক ক্যাম্প স্থাপন করা। ফলে কয়েকদিন আগে সেটলার বাঙালিদেরকে দিয়ে মাটিরাঙ্গা-মহালছড়ি-মানিকছড়িতে পাহাড়িদের উপর হামলা এবং গতকাল রামগড় ত্রিপুরা গ্রামে পাহাড়িদের উপর হামলা ও অপহরণের ঘটনা ঘটেছে।

তিনি, রামগড়ে পাহাড়ি গ্রামে হামলা-ভাঙচুর-তল্লাশি ও এক ব্যক্তিকে ধরে নেওয়ার ঘটনাকে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে রুখে দাঁড়ানোর জন্য পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশের নিপীড়িত জনগণের প্রতি আহ্বান জানান। অবিলম্বে রামগড়ে পাহাড়ি গ্রামে হামলা-ভাঙচুর-তল্লাশি ও এক ব্যক্তিকে ধরে নেওয়ার ঘটনার সাথে জড়িত মন্নান, কামাল, হানিফ বাচ্চুসহ তাদের অনুসারীদের গ্রেফতার করে বিচারের দাবি জানানো হয়।

উল্লেখ্য, মন্নান, কামাল-হানিফের নেতৃত্বে ৬০/৭০ জন সেটলার বাঙালি গতাকাল রাত আনুমানিক ১১টায় খাগড়াছড়ি জেলা রামগড় উপজেলা সদর ইউনিয়ন লালছড়ি সাধু পাড়ায় ত্রিপুরা অধ্যুষিত পাহাড়িদের গ্রামে প্রবেশ করে বাড়ী-ঘরে হামলা-ভাঙচুর-তল্লাশি ও ব্রজ কুমার ত্রিপুরা নামে একজনকে বাড়ী থেকে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়।

বার্তা প্রেরক,

(সমর চাকমা)
দপ্তর সম্পাদক
পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ
খাগড়াছড়ি জেলা শাখা।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment