বিজয়িনীদের বরণ, দুই কোটি টাকা পুরস্কার

অনলাইন ডেস্ক –

বিমানবন্দর থেকে সরাসরি তাদের সোনারগাঁও হোটেলে নিয়ে আসা হয়। হোটেলের বলরুমে সংবর্ধনার মঞ্চে সালমা-রুমানাদের দেখেই উল্লাসে ফেটে পড়েন সবাই। দেশকে প্রথম আন্তর্জাতিক শিরোপা এনে দেওয়া নারী ক্রিকেটারদের দাঁড়িয়ে করতালির মাধ্যমে অভিনন্দিত করেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার, বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনসহ উপস্থিত সবাই। তাদের এ অর্জনের স্বীকৃতিস্বরূপ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) গতকাল দুই কোটি টাকা পুরস্কারও ঘোষণা করেছে। দলের প্রত্যেক খেলোয়াড় ন্যূনতম ১০ লাখ টাকা করে পাবেন।

গতকাল সালমাদের দেশে ফেরাটা ছিল একটু অন্য রকম। অতীতে তারা অনেকবারই বিদেশ সফর করেছেন। গতকালের মতো এত আয়োজন-নিরাপত্তা কোনোবারই দেখা যায়নি। নারী ক্রিকেটারদের বহনকারী ইউএস-বাংলার বিমানটি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিটের দিকে। সেখান থেকে ভিভিআইপি নিরাপত্তায় সরাসরি তাদের নিয়ে আসা হয় সোনারগাঁও হোটেলে। ইফতারের পর পরই মঞ্চে ওঠে ভারতকে ৩ উইকেটে হারিয়ে এশিয়া কাপজয়ী বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। তুমুল করতালিতে মুখর হয়ে ওঠে হোটেলের বলরুম। এরপর অধিনায়ক সালমা খাতুনের গলায় ফুলের মালা পরিয়ে বরণ করে নেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার। ফাইনালের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার পাওয়া রুমানার গলায় মালা পরান বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। এরপর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের স্পন্সর বেসরকারি মোবাইল অপারেটর কোম্পানি ‘রবি আজিয়াটা’র পক্ষ থেকে নারী ক্রিকেটারদের হাতে ফুলের তোড়া তুলে দেওয়া হয়। সেইসঙ্গে নারী দলের প্রত্যেকের জন্য একটি করে ‘আইফোন এক্স’ দেওয়ার ঘোষণা দেয় মোবাইল অপারেটর কোম্পানিটি। এমন অর্জনের স্বীকৃতিস্বরূপ উপহার পেয়ে ভীষণ খুশি নারী দলের অধিনায়ক সালমা, ‘প্লেন থেকে নামার পর থেকেই গিফট আর গিফট পাচ্ছি। অনেক আনন্দ লাগছে।’

গতকাল ছিল বিসিবির পূর্বনির্ধারিত বোর্ড সভা ও ইফতার মাহফিল। আর মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরের কিনরারা ওভালে ভারতকে হারিয়ে এশিয়া কাপের শিরোপা জেতা সালমা-রুমানারাও দেশে ফেরেন গতকাল সন্ধ্যায়। তাই এক মঞ্চে হয়ে যায় দুটি অনুষ্ঠান। ইফতারের আগে বোর্ড সভায় নেওয়া হয় নারী ক্রিকেটারদের দুই কোটি টাকা পুরস্কার দেওয়ার সিদ্ধান্ত। নারী ক্রিকেটাররা হোটেলে পৌঁছার আগেই এ ঘোষণা দেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন, ‘নারী ক্রিকেটাররা আমাদের প্রথম বৈশ্বিক শিরোপা জিতিয়েছে। শুধু ক্রিকেট নয়, আমার মনে হয় বাংলাদেশের ক্রীড়া ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে বড় অর্জন। তারাই আসলে আমাদের পথ দেখাল। এশিয়া কাপজয়ী নারী ক্রিকেট দলের প্রত্যেককে অন্তত ১০ লাখ টাকা করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে বোর্ড সভায়। শুধু তাই নয়, যাদের পারফরম্যান্স ভালো ছিল, তাদের আরও বেশি কিছু দেওয়া হবে। যেমন- রুমানা আছে (ফাইনালে ম্যাচসেরা)। টিম ম্যানেজমেন্টের সদস্যদেরও দেওয়া হবে। সব মিলিয়ে দুই কোটি টাকা বোনাস দেওয়া হবে।’

নারী ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক নিয়ে অনেক দিন ধরেই নানা সমালোচনা চলছে। বিশেষ করে ঘরোয়া ক্রিকেটে জাতীয় লীগে তাদের ৬০০ টাকা ম্যাচ ফির বিষয়টি তো সবার মুখে মুখে ছিল। এশিয়া কাপ জয়ের পর আবার তাদের পারিশ্রমিক নিয়ে দেশব্যাপী তুমুল সমালোচনা চলছে। গতকাল বিসিবি সভাপতি তাদের পারিশ্রমিক ও ম্যাচ ফি বাড়ানোর ইঙ্গিতও দিয়েছেন। এ বিষয়ে নাজমুল হাসান বলেন, ‘নারী ক্রিকেটারদের বেতন-বোনাস কীভাবে বাড়ানো যায়, সেটা নিয়ে আমরা চিন্তাভাবনা করছি। এনায়েত হোসেন সিরাজের (বিসিবি পরিচালক) নেতৃত্বে একটি কমিটি করে দেওয়া হয়েছে। তারা দু-তিন দিনের মধ্যে আমাদের প্রতিবেদন দেবেন। তাদের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে অতিদ্রুতই আমরা ব্যবস্থা নেব।’

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment