গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে ২য় রাউন্ডে ব্রাজিল

অনলাইন ডেস্ক –

সার্বিয়াকে হারিয়ে শেষ ষোলোতে পা রাখল ব্রাজিল। বুধবার রাতে মস্কোতে অনুষ্ঠিত ম্যাচে ব্রাজিল জিতেছে ২-০ গোলে। এর ফলে ই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই নকআউট পর্ব নিশ্চিত করেছে দলটি। সুইজারল্যান্ড একইদিনে কোস্টারিকার সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করেছে। তাই সাত পয়েন্ট নিয়ে ই গ্রুপে ব্রাজিল চ্যাম্পিয়ন এবং পাঁচ পয়েন্ট নিয়ে সুইজারল্যান্ড রানার্সআপ হয়েছে। আর বিদায় নিতে হয়েছে সার্বিয়া ও কোস্টারিকাকে।

খেলার ৩৬ মিনিটে পলিনহোর একমাত্র গোলে ১-০ গোলে এগিয়ে যায় ব্রাজিল। লম্বা পাসে বক্সের সামনে বল পেয়ে ক্ষিপ্র গতিতে এগিয়ে গিয়ে গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে আলতোভাবে বল ঠেলে দেন জালে। এই এক গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় পাঁচবারের সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

বিরতি ভেঙে এসে ৬৮ মিনিটে থিয়াগো সিলভা ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। নেইমারের নেয়া কর্নার কিকে হেডের সাহায্যে গোল করেন তিনি। পুরো ম্যাচে নেইমার গোলের বেশ কয়েকটি ভালো সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত ব্রাজিল এই ২-০ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে।

বড় দলগুলোর মধ্যে দুইবারের সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা ভাগ্যের জোরে দ্বিতীয় রাউন্ডে পৌঁছেছে। তবে শেষ রক্ষা হয়নি জার্মানির। শেষবার সহ চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানির বিদায় হয়ে গেছে প্রথম রাউন্ড থেকেই।

কোরিয়ার কাছে হেরে জার্মানির বিদায় :

দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে শেষ ম্যাচে হেরে গ্রুপপর্ব থেকেই বিদায় নিতে হয়েছে ফিফা বিশ্বকাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জার্মানিকে। গতকাল বুধবার কোরিয়ার কাছে ২-০ ম্যাচে হেরেছে তারা। পুরো ৯০ মিনিট দু’দলের খেলা গোলশূন্য থাকলেও অতিরিক্ত সময়ে এসে দুই গোল করে বসে কোরিয়া।

এফ গ্রুপের অপর ম্যাচে মেক্সিকোকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে সুইডেন। তাই পূর্ণ ছয় পয়েন্ট নিয়ে মেক্সিকো ও সুইডেন দু’দলই এই গ্রুপ থেকে নকআউট পর্ব নিশ্চিত করেছে। অপরদিকে এক ম্যাচ করে জিতে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছে জার্মানি ও কোরিয়া।

জয়ের জন্য জার্মানি মাঠের খেলায় যতোট না মরিয়া ছিল তার চেয়ে বেশি ছিল মানসিকভাবে। যে কারণে নির্ধারিত সময় শেষ হয়ে যাওয়ার পর তারা যেন পাগলপ্রায় হয়ে ওঠে। আর সেই সুযোগই দারুণভাবে কাজে লাগায় কোরিয়া।

যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে প্রথম গোলটি করেন কোরিয়ান সেন্টারব্যাক কিম ইয়ং-গাউন। মাঠের রেফারি প্রথম অফসাইডের অজুহাত তুললেও ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির (ভিএআর) সহায়তায় রেফারি গোলের সিদ্ধান্ত দেন। এক গোলে পিছিয়ে পড়ে মরিয়া ওঠে জার্মানি। যে কারণে গোলরক্ষক ম্যানুয়েল নয়্যার গোলপোস্ট ছেড়ে কোরিয়ার বক্সের সামনে চলে যান।

সেই সুযোগে যোগ করা সময়ের ৬ মিনিটে কোরিয়ান মিডফিল্ডার জু সে-জং পাস বাড়ান স্ট্রাইকার সন-হিউং-মিনকে। গোলরক্ষকবিহীন গোলপোস্টে বল পাঠাতে তিনি কোনো ভুল করেননি। ব্যবধান দ্বিগুণ করে জার্মানিকে নিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে বাড়ি ফেরার টিকিট কেটে দেয় কোরিয়া।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment