রাঙ্গামাটি নাটঘর একাডেমি ও নান্যাচর সংগীত একাডেমির যৌথ উদ্যোগে সংগীত পরীক্ষা

বিশেষ প্রতিবেদক –


পাহাড়ের শিল্পীদের প্রতিভা বিকাশে স্থানীয় সাংস্কৃতিক সংগঠন গুলোকে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে। এখানে বিভিন্ন জাতিসত্বার রয়েছে বৈচিত্রপূর্ণ কৃষ্টি – সংস্কৃতির গৌরবময় ঐতিহ্য। যা বাংলাদেশের মূলধারার সংস্কৃতিকে করেছে সমৃদ্ধ। আজ রবিবার রাঙ্গামাটি শিল্পকলা একাডেমিতে রাঙ্গামাটি নাটঘর একাডেমি ও নান্যাচর সংগীত একাডেমির যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত সংগীত পরীক্ষা -২০১৭ তে উত্তীর্ণ শিল্পীদের পুরস্কার বিতরণ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা উপরোক্ত কথা বলেন।

ধ্রুব সাংস্কৃতিক পরিষদ, বাংলাদেশ কর্তৃক আয়োজিত সংগীত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিল্পীদের সনদপত্র, ম্যাগাজিন ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, নাটঘর একাডেমির সভাপতি প্রনব চাকমা। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাঙ্গামাটি প্রেসক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল। বিশেষ অতিথি ছিলেন, রাঙ্গামাটি পৌর কাউন্সিলর ও বিশিষ্ট কন্ঠ শিল্পী কালায়ন চাকমা। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী অনন্ত চাকমা, রাঙ্গামাটি নাটঘর একাডেমির অধ্যক্ষ সচিব চাকমা, নান্যাচর সংগীত একাডেমির অধ্যক্ষ তপন জ্যোতি চাকমা প্রমুখ।

পরে সংগীত পরীক্ষা-২০১৭ এতে উত্তীর্ণ শিল্পীদের সনদপত্র ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এর পূর্বে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এ শিল্পীরা গান, নৃত্য ও কবিতা আবৃত্তিতে অংশ নেন। এতে অংশ নেন – যথাক্রমে জুনান চাকমা, মিস উখই মারমা, মৈত্রী চাকমা, নুমরাত জাহান, কাইনি চাকমা, শ্রেয়সী চাকমা, স্মিতা, মৌমিতা, শিরোপা, এনড্রিনা, মিতা, সুবর্ণ চাকমা, শ্রগড়ি চাকমা, অরুনা দেওয়ান, পবিত্র চাকমা, সুপ্রতিম চাকমা, মৃত্তিকা চাকমা, শতাব্দি, অন্বেষা চাকমা প্রমুখ।

বার্তা প্রেরক :
সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল
১২/০৮/২০১৮ইং।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment