পুনরায় চালু রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতালের মহিলা ও শিশু ওয়ার্ড

প্রেস রিপোর্ট –

রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতালের মহিলা ও শিশু ওয়ার্ডে গত ২৫ জানুয়ারি ২০১৭ সাল থেকে ভবনের বিমে ফাটল সৃষ্টি হওয়ায় রোগীদের নিরাপত্তার জন্য অন্য ওয়ার্ডে সরিয়ে নেয়া হয়েছিল। রোগীদের দুর্ভোগ লাঘবে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের অর্থায়নে হাসপাতালের মহিলা ও শিশু ওয়ার্ড সংস্কার করা হয়। সংস্কারের জন্যে বন্ধ থাকা হাসপাতালের মহিলা ও শিশু ওয়ার্ড সংস্কার করে পুনরায় চালু করা হয়েছে।

সোমবার (২০ আগস্ট) সকালে রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা ফিতা কেটে এই ওয়ার্ডের উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের পর পরিষদ চেয়ারম্যান মহিলা ও শিশু ও পুরুষ ওয়ার্ড ঘুরে দেখেন এবং হাসপাতালে চিকিৎসারত রোগীদের সাথে কথা বলেন।

এ সময় রাঙ্গামাটি সিভিল সার্জন ডা. শহীদ তালুকদার, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. নিহার রঞ্জন নন্দী, শিশু বিষয়ক কনসালটেন্ট ডা. এম এ হাই’সহ সিনিয়র চিকিৎসক, সাংবাদিক ও হাসপাতালের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনকালে রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেন, বর্তমান সরকার রোগীদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। রোগীরা যাতে সরকারের সুযোগ সুবিধা পায় সেজন্যে রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ, সমাজ সেবা রোগী কল্যাণ সমিতি এবং হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের বিনামূল্যে ঔষধ ও চিকিৎসা সেবা প্রদানের জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এই সেবাগুলো রোগীদেরকে বুঝে নেয়ার জন্য তিনি অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, জেলার ১০টি উপজেলা থেকে হাসপাতালে আগত রোগীদের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে পরিষদের অর্থায়নে মহিলা ও শিশু ওয়ার্ডটি যতদ্রুত সম্ভব সংস্কার করে আজ পুনরায় চালু করা হয়েছে। এতে রোগীদের দুর্ভোগ অনেকাংশে কমে আসবে বলে আশা করা যায়। তিনি বলেন, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার কথা চিন্তা করে পরিষদ হতে ৪জন পরিছন্নতা কর্মী হাসপাতালে দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে রোগীদের বিদ্যুৎ সমস্যা দূরীকরণে পরিষদ থেকে জেনারেটরও প্রদান করা হয়েছে। জেলার স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়নে প্রয়োজনে পরিষদ হতে আরো সহায়তা প্রদান করা হবে।

উল্লেখ্য, ১৯৮৩ সালে ৫০ শয্যা দিয়ে নতুন ভবন চালু করা হয়। পরবর্তী সময়ে ১৯৮৪ সালে ১০০ শয্যায় উন্নীত হওয়ার পর ২০১৭ সালে ভবনের কিছু অংশ ফাটল দেখা দেয়ায় তাৎক্ষণিকভাবে রোগীদের অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়।

সম্প্রতি বুয়েটের একটি বিশেষজ্ঞ টিমের মতামত অনুযায়ী রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতালের মহিলা ও শিশু ওয়ার্ডটি রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ কর্তৃক সংস্কার করার পর পুনরায় চালু করা হয়।

অরুনেন্দু ত্রিপুরা
জন সংযোগ কর্মকর্তা
রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ
ছবি এবং সংবাদ : লিটন শীল।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment