দীঘিনালায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে গণতান্ত্রিক ইউপিডিএফ-এর এক কর্মী নিহত

খাগড়াছড়ি রিপোর্ট –

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় প্রতিপক্ষের গুলিতে ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) কর্মী সুমন্ত চাকমা (২৮) নিহত হয়েছে। তিনি দীঘিনালা উপজেলার মেরুং ইউনিয়নের শান্তি বিকাশ চাকমার ছেলে। শুক্রবার (২ নভেম্বর) ভোর সাড়ে চারটার দিকে তার নিজ বাড়িতে এঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) প্রসিত বিকাশ সমর্থিত ইউপিডিএফ কে দায়ী করেছে। তবে ঘটনার দায় অস্বীকার করেছে, ইউপিডিএফ প্রসিত গ্রুপ। ঘটনার পর পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করতে ঘটনাস্থলে রওনা দিয়েছেন ।

জানা যায়, সুমন্ত চাকমা নিজ বাড়িতে ঘুমিয়েছিলেন। পরে ঘুমন্ত অবস্থায় প্রতিপক্ষের লোকজন গুলি করলে, ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। সুমন্ত চাকমা ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিকের একজন সক্রিয় কর্মী এবং ওই এলাকার সংগঠক। এ ব্যাপারে ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক-এর এর দীঘিনালা উপজেলা সংগঠক প্রনয় বিকাশ চাকমা জানান, নিহত সুমন্ত চাকমা আমাদের সংগঠনের সক্রিয় কর্মী। প্রসিত বিকাশ সমর্থিত ইউপিডিএফ -এর সন্ত্রাসীরা তাকে গুলি করে হত্যা করেছে।
নিহতের স্ত্রী চম্পা চাকমা বলেন, আমার স্বামী বাড়িতে আসত কম, গত কয়েকদিন আগে মোটর সাইকেল দুর্ঘটনা করে বাড়িতে এসেছিল, এই সুযোগ পেয়ে সশস্ত্র সন্ত্রীরা ঘুমন্ত অবস্থায় গুলি করে পালিয়ে যায়। সে ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিকের একজন সক্রিয় কর্মী ছিল। এখন আমার এক ছেলে এক মেয়েকে নিয়ে কিভাবে বাঁচব।

ঘটনার অভিযোগ অস্বীকার করে, ইউপিডিএফ (প্রসিত) -এর খাগড়াছড়ি জেলা সংগঠক মাইকেল চাকমা জানান, তাদের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে এঘটনা ঘটে থাকতে পারে। আমাদের সংগঠনের কেউ এ ঘটনার সাথে জড়িত নয়।

স্থানীয়দের ধারণা, পুরো এলাকাটি ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক ও জেএসএস সংস্কার অধ্যুষিত। তাই অন্য কারো পক্ষে এই এলাকায় প্রবেশ সহজসাধ্য হয়। সে কারণে মনে হচ্ছে, প্রতিপক্ষ এই খুনে ভাড়াটিয়া খুনীদের ব্যবহার করতে পারে। ওই এলাকায় এ ধরনের প্রবণতা আগেও দেখা গেছে। দীঘিনালা থানার এসআই মো: মোবারক হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন, এবং জানিয়েছেন লাশ ময়না তদন্তের জন্য খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment