রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের ৭৩ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা

রাঙ্গামাটি রিপোর্ট –

২০১৯-২০ অর্থ সালের জন্য ৭৩ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করেছে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ। বুধবার (৩১ জুলাই) রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে এই বাজেট ঘোষণা করেন।

বাজেটে সরকারের থোক বরাদ্দ থেকে ৭০ কোটি টাকা এবং পরিষদের নিজস্ব আয় থেকে ৩ কোটি টাকা আয় ধরে মোট ৭৩ কোটি টাকার বাজেট পেশ করা হয়। বাজেটে সংস্থাপন ব্যয় ধরা হয়েছে ১১ কোটি টাকা, উন্নয়ন প্রকল্প ব্যয় ধরা হয়েছে ৫৯ লক্ষ টাকা এবং পরিশষ্টি “ঘ” অনুসারে ৩ লক্ষ টাকা ব্যয় হয়েছে।

বাজেট সভায় রাঙ্গামাটির কর্মরত সংবাদকর্মীসহ রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের সদস্য হাজী মো: মুছা মাতব্বর, জেলা পরিষদ সদস্য রেমলিয়ানা পাংখোয়া, পরিষদ সদস্য ত্রিদীব কান্তি দাশ, পরিষদ সদস্য জ্ঞানেন্দু বিকাশ চাকমা, পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা সাদেক হোসেন, রাঙ্গামাটি সিভিল সার্জন ডা: শহীদ তালুকদার উপস্থিত ছিলেন।

বাজেটে শিক্ষা এবং তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে ১১ কোটি ৭০ লক্ষ টাকা, যোগাযোগ অবকাঠামো খাতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে ১৪ কোটি ৬৭৫ লক্ষ  টাকা, ধর্ম খাতে ৫ কোটি ৯০ লক্ষ টাকা, সমাজ কল্যাণ, আর্থ সামাজিক ও নারী উন্নয়ন খাতে ৫ কোটি ৩১ টাকা, পূর্ত (গৃহ/অবকাঠামো নির্মাণ) খাতে ৭ কোটি ৮ লক্ষ টাকা, স্বাস্থ্য, পরিবার কল্যাণ ও সুপেয় পানি খাতে ৪ কোটি ৭২ লক্ষ টাকা, কৃষি, মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ খাতে ২ কোটি ৯৫ লক্ষ টাকা, জলবায়ু পরিবর্ত ও পরিবেশ (বৃক্ষরোপন বনায়ন) খাতে ১ কোটি ১৮ লক্ষ টাকা, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতি খাতে ৫৯ লক্ষ টাকা, পর্যটন খাতে ১ কোটি ১৮ লক্ষ টাকা, ত্রাণ ও পুনর্বাসন খাতে ১ কোটি ৭৭ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা, ভূমি ও হাটবাজার ৫৯ লক্ষ টাকা, শিশু উন্নয়ন ৫৯ লক্ষ টাকা, বিবিধ (পরিষদের আয় বর্ধক প্রকল্প) ৫৯ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দিয়ে রাখা হয়েছে।

চেয়ারম্যান তার বক্তব্যে বলেন, পার্বত্য রাঙ্গামাটির জেলার উন্নয়নে রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের ভূমিকা অত্যন্ত বেশী। পরিষদের বরাদ্দ কম থাকায় পরিষদ বড় কোন প্রকল্প হাতে নিতে পারছে না। তিনি বলেন, রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদে যে বাজেট আমরা পেশ করি সমতল ভূমিতে তার ১০ গুণ বেশী বাজেট দিয়ে একেকটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। তিনি বলেন, এই বছর আমরা পার্বত্য অঞ্চলের স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নে আরো বেশী প্রকল্প গ্রহণ করা হবে এবং ডাক্তাররা যাতে এখানে সঠিক সময়ে সেবা প্রদান করে তার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তিনি বলেন, পর্যটন খাতকে আরো উন্নত করতে রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের আন্তরিকতার কোন অভাব নেই। পরিষদ রাঙ্গামাটির পর্যটন খাতকে উন্নত করতে যে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে তা অনুমোদিত হলে এই খাতে অনেক মানুষ উপকৃত হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment