২১ আগস্ট হামলার প্রতিবাদে রাঙ্গামাটিতে বিক্ষোভ মিছিল

রাঙ্গামাটি রিপোর্ট –

জাতির জনকের বংশধর ধ্বংসের মাধ্যমে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূণ্য করতে বিএনপি জামায়াত জোট সরকার ২০০৪ সালের ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন রাঙ্গামাটির সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় সদস্য দীপংকর তালুকদার।

২১ আগস্ট হামলার মূল হোতা এবং সাজাপ্রাপ্ত অপরাধীদের দেশে এনে ফাঁসির রায় কার্যকর করাসহ সব ষড়যন্ত্র রুখে দিতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানান।

বুধবার (২১ আগষ্ট) সকালে ইতিহাসের ভয়াবহতম ও নৃশংস গ্রেনেড হামলার ১৫তম বার্ষিকী পালন উপলক্ষে আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিলোত্তর সমাবেশে তিনি এ আহবান জানান।

সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রুহুল আমিন, সহ-সভাপতি নিখিল কুমার চাকমা, সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য হাজী মো: মুছা মাতব্বর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জসীম উদ্দীন বাবুল, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো: সোলাইমান, জেলা যুবলীগের সভাপতি ও রাঙ্গামাটি পৌরসভা মেয়র মো: আকবর হোসেন চৌধুরী, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মো: শাওয়াল উদ্দিন, মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি উদয়ন বড়ুয়া, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ চাকমসহ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা বক্তব্য রাখেন।

দীপংকর তালুকদার এমপি আরো বলেন, সেনাবাহিনীর উপর সন্ত্রাসী হামলা করা হয়েছে, সেখানে একজন সেনা সদস্য নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছে আরো তিনজন। এসব হচ্ছে পার্বত্য চট্টগ্রামকে অশান্ত করার একটি নীল নকশা। তারা মনে করেছিল সেনাবাহিনীর উপর হামলা করলে সেনাবাহিনীও এখানে পাল্টা আঘাত  করবে, কিন্তু সেনাবাহিনী তা করেনি, তারা অত্যন্ত ধৈর্য্যরে সাথে পরিস্থিতি মোকাবেলা করেছে। এজন্য সেনাবাহিনীকে আমরা ধন্যবাদ জানাই এবং ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদের শাস্তির জোর দাবী জানাই।

তিনি বলেন, দেশ স্বাধীন হওয়ার পর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ হাসিনার নেতৃত্বে যখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাস্তবায়ন এবং দেশের সার্বিক অগ্রগতি হচ্ছিল, ঠিক তখন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। তারপর জাতীয়  চার নেতাকে হত্যা করা হয়, দীর্ঘ ২১টি বছর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উপর নির্যাতন চালানো হয়। দেশের চরম ক্রান্তিলগ্নে আওয়ামী লীগের হাল ধরেন বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা। তারই নেতৃত্বে বাংলাদেশ আবারো ক্ষমতায় আসে। আজকে বাংলাদেশের উন্নয়ন বিশ্বে একটি রোল মডেল।

এসময় বক্তারা আরো বলেন, পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যার মধ্য দিয়ে দেশে ষড়যন্ত্রকারীদের উত্থান হয়েছিল। এরই ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। শেখ হাসিনাকে বারবার হত্যাচেষ্টার ষড়যন্ত্রের পেছনে দেশবিরোধীরাই জড়িত।

বক্তারা আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলাকারীরা এখনও ষড়যন্ত্র করছে। আর বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে দেশ স্বাধীন হলেও দেশে এখনো স্বাধীনতা বিরোধী রাজাকাররা সন্ত্রাসী কার্যক্রম এখনো চালাচ্ছে। আর বর্তমানে ষড়যন্ত্র অব্যাহত আছে। এই সকল ষড়যন্ত্রকে চিরতরে ধ্বংস করে দেওয়ার জন্য নেতাকর্মীদের সজাগ থাকার আহবান জানান তিনি।

এর আগে রাঙ্গামাটি পৌরসভা প্রাঙ্গন থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয় বিক্ষোভ মিছিলটি রাঙ্গামাটির প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসক কার্যালয় প্রাঙ্গনে এসে শেষ হয়।

খবরটি শেয়ার করুন

Post Comment